ওয়েবডেস্ক: এত দিন নিশানায় ছিল ‘পদ্মাবত’! তা নিয়ে দফায় দফায় তৈরি হল কত না শিরোনাম! আর এ বার তার রেশ থামতে না থামতেই ফের শুরু হল তুলকালাম! এ বারেও বিরোধিতার কেন্দ্রে বলিউডের আরেক নারীবাদী ছবি ‘মণিকর্ণিকা: দ্য কুইন অব ঝাঁসি’! সমাপতন হোক আর যা-ই হোক, ঘটনাক্রমে সেটাও ঐতিহাসিক!

manikarnika the queen of jhansi

এবং এই বিরোধিতার সূত্রে সমাপতন যেন শেষ হতেই চাইছে না! রাজস্থানের শ্রী রাজপুত কর্নি সেনা যেমন ‘পদ্মাবত’ ঘিরে অশান্তির আবহ তৈরি করেছিল দেশে, তেমনই ঝাঁসির রানির জীবন নিয়ে শুটিং চলা এই ছবির বিরুদ্ধেও প্রতিবাদ এল সেই রাজস্থান থেকেই! তফাতের মধ্যে দলটা যা আলাদা- সর্ব ব্রাহ্মণ মহাসভা!

manikarnika the queen of jhansi

তা, বিরোধিতার প্রসঙ্গে কী যুক্তি তুলে ধরছেন ব্রাহ্মণরা?

manikarnika the queen of jhansi

তাঁদের আপত্তি যে বইটা অবলম্বনে ছবির চিত্রনাট্য তৈরি হয়েছে, সেটা নিয়ে। ২০০৮ সালে যখন জয়শ্রী মিশ্রর ‘রানি’ নামে বইটা প্রকাশিত হয়েছিল, তখনই এক দফা বিতর্ক তৈরি হয়েছিল। দাবি উঠেছিল, বইতে লেখিকা রানি লক্ষ্মীবাঈয়ের সঙ্গে রবার্ট এলিস নামের একজন ব্রিটিশ অফিসারের অন্তরঙ্গতার বিবরণ দিয়েছেন। পরিণামে বিরোধের মুখে তৎকালীন মায়াবতী-সরকার পরিচালিত উত্তরপ্রদেশে বইটিকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়।

manikarnika the queen of jhansi

সেই সূত্র টেনে এ বার সর্ব ব্রাহ্মণ মহাসভার দাবি- বইয়ের প্রসঙ্গ ছবিতেও থাকছে! ছবির বাণিজ্যিক দিকটা জোরদার করার জন্য এ রকম একটা উপাদান বাদ দিতে চাইবেন না ছবির নির্মাতারা।

manikarnika the queen of jhansi

“আমরা জানতে পেরেছি যে ব্রিটিশ অফিসার এবং রানি লক্ষ্মীবাঈয়ের প্রণয়ের কথা ছবিতেও থাকছে। রাজস্থানে যখন ছবির শুটিং হয়েছে, তখন আমাদের দলের অনেক সমর্থকই সেখানে উপস্থিত ছিলেন। তাঁরা শুটিং দেখে এসে ঘটনাটার কথা আমাদের জানিয়েছেন। আমরা তাই পরিচালকের এই মনোভাবের তীব্র বিরোধিতা করছি। আমাদের দাবি- ছবিতে কী কী থাকছে, তা পরিচালককে বিশদে জানাতে হবে। না হলে আমরা ছবির শুটিং হতে দেবো না”, একটি সাংবাদিক বৈঠকে এই কথা জানিয়েছেন সর্ব ব্রাহ্মণ মহাসভার মুখপাত্র সুরেশ মিশ্র। জানা গিয়েছে, ঘটনায় তাঁদের সমর্থন জোগাচ্ছে শ্রী রাজপুত কর্নি সেনাও!

manikarnika the queen of jhansi

যদিও ছবিটির নির্মাতারা মহাসভার এই বক্তব্যকে অমূলক বলেই দাবি করছেন। “এটা ঠিক যে ছবির চিত্রনাট্য বইটা থেকে তৈরি করা হয়েছে। কিন্তু বইয়ের যে সব অংশ বিতর্কিত, তার বিন্দুমাত্রও আমাদের চিত্রনাট্যে নেই। আমরা এমন ভাবেই ছবিটা বানাচ্ছি যাতে তা কারও ভাবাবেগেই আঘাত না দেয়। রানি লক্ষ্মীবাঈ আমাদের গর্বের জায়গা! সেটাকে খামোখা বিকৃত করতে যাবই বা কেন”, পাল্টা প্রশ্ন তুলেছেন ছবির প্রযোজক কমল জৈন।

manikarnika the queen of jhansi

যদিও ব্রাহ্মণদের বিক্ষোভ এই যুক্তিতে প্রশমিত হচ্ছে না। সে কাশীর গঙ্গার ঘাটে ব্রাহ্মণদের পায়ের কাছে বসে ছবির পোস্টার-মুক্তি উপলক্ষে গঙ্গা আরতি এবং বিশেষ পূজায় কঙ্গনা রানাউত অংশ নিলেও!

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন