ওয়েবডেস্ক: পরিসংখ্যান বলছে, ফেসবুক না কি ২০১৭ সালে পাক্কা ১ বিলিয়ন ফেক প্রোফাইল উড়িয়ে দিয়েছে। ইনস্টাগ্রাম নিয়েছে বিশেষ বন্দোবস্ত- ফলোয়িং রিকোয়েস্ট ভেরিফিকেশন সিস্টেম চালু করেছে! পিছিয়ে নেই টুইটারও- রিপোর্টিং সংক্রান্ত কিছু ব্যাপার আপডেট করা হয়েছে সেখানেও। তার পরেও টলিউডের সেলেব্রিটিরা ভুগছেন ফেক প্রোফাইলের ধাক্কায়?

আরও পড়ুন: মৃতদেহের সঙ্গে মৈথুন! ইনস্টাগ্রামে ঝড় তুলেছে রিয়া সেনের নয়া ছবির ভিডিও!

 

View this post on Instagram

 

Stare into your own eyes and know your worth.

A post shared by Vikram Chatterjee (@vikramchatterje) on

খবর তো তাই বলছে! এ ব্যাপারে সবার আগে নাম তোলা যেতে পারে বিক্রম চট্টোপাধ্যায়ের। তাঁর নামে না কি সোশ্যাল মিডিয়ায় গুচ্ছের ফেক প্রোফাইল আছে। সেই সব ফেক প্রোফাইলে তাঁর ছবি, এমনকি ভিডিও ক্লিপ এডিট করে মেয়েদের কাছে নানা কুপ্রস্তাব যায়! গত বছরেই এমন এক নকল প্রোফাইলের পিছনে থাকা ব্যক্তির বিরুদ্ধে এফআইআর করেছিলেন বিক্রম। তাতেও যে লাভ হয়েছে, এমনটা বলা যাচ্ছে না। “এরা ছবি থেকে শুরু করে ক্যাপশন পর্যন্ত এত নিখুঁত ভাবে কপি করে যে আসলে-নকলে তফাত বোঝা যায় না। আমার টুইটার অ্যাকাউন্টটায় অবশ্য ব্লু টিক আছে, কাজেই ওখানে খাপ খোলা যাবে না। সমস্যা ফেসবুক আর ইনস্টাগ্রামটা নিয়ে; দেখি কত দিনে ভেরিফায়েড হয়”, বলছেন বিক্রম!

 

View this post on Instagram

 

Caption is missing ❤

A post shared by Madhumita Chakraborty (@madhumita.act) on

বিক্রমের চেয়েও বেশি খারাপ অবস্থা ‘কুসুম দোলা’ ধারাবাহিকের মধুমিতা চক্রবর্তীর- তাঁর নামে ২৮টার কাছাকাছি ফেক প্রোফাইল আছে! ২০১৬ সালে মধুমিতা তাঁর স্বামী সৌরভ চক্রবর্তীকে নিয়ে লালবাজারের সাইবার ক্রাইম সেলে লিখিত অভিযোগ দায়ের করতেও বাধ্য হয়েছিলেন। “খবর ছড়িয়েছিল এক ওয়েবসাইট মারফত আমার ছবি মর্ফ করে- গোয়ার এক মধুচক্র থেকে পুলিশ আমায় গ্রেফতার করেছে! তার পর থেকে যতটা সম্ভব সাবধানে থাকি”, জানিয়েছেন মধুমিতা!

 

View this post on Instagram

 

#soumitrachatterjee 💟

A post shared by Dharitri (@dharitri15) on

যদিও কম বয়সীরা নন, সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের মতো বর্ষীয়ান অভিনেতাও পড়েছেন এক সমস্যায়। বৃহস্পতিবারেই তাঁর মেয়ে পৌলোমী বসু বাবার ফেক সোশ্যাল মিডিয়া প্রোফাইল দেখে লালবাজারের সাইবার ক্রাইম সেলের দ্বারস্থ হতে বাধ্য হয়েছেন। “বুঝি না এ সব করে লোকজন কী আনন্দ পায়! অবিলম্বে এ সব বন্ধ হওয়া উচিত”, দাবি পৌলোমীর!

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here