ওয়েবডেস্ক: বাধ্যবাধকতার ব্যাপারটা চমকে ওঠার পক্ষে পর্যাপ্ত বই কি! ভালোবেসে পরস্পরকে বিয়ে করতে চলেছেন দীপিকা পাড়ুকোন এবং রণবীর সিং, সেখানে তো কোনো জোরজবরদস্তি থাকার কথা নয়!

কিন্তু ভেবে দেখলে ব্যাপারটা স্পষ্ট হবে! আসলে সম্পর্ক ব্যাপারটাই এই রকম! একটা সময়ের পর তা পরস্পরের সঙ্গে পরস্পরকে থাকতে বাধ্যই করে! মনের একেবারে ভিতর থেকে সেই টানটা আসে। এখন সবার ক্ষেত্রেই ব্যাপারটা একই রকম কি না, তা নিয়ে তর্ক করা যেতেই পারে। কিন্তু আলোচনার কেন্দ্রে যখন রয়েছেন দীপিকা পাড়ুকোন, তখন নায়িকার যুক্তিটা তুলে ধরাই কি উচিত হবে না?

deepveer

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে একটা নয়, একেবারে দুটো বিস্ফোরক মন্তব্য করেছেন নায়িকা। তার মধ্যে প্রথমটা হল- তাঁর আর রণবীরের সম্পর্কটা স্বীকার করে নেওয়া! যা নায়িকা এত দিন করেননি! কারও কিছু বুঝতে বাকি ছিল না ঠিকই, কিন্তু এটাও ঠিক যে নায়িকা কোনো দিনই মুখ ফুটে কবুল করেননি ব্যাপারটা! এই প্রথম করলেন! জানালেন- “হ্যাঁ, রণবীরই আমার মনের মানুষ”!

বলিউড বলছে, এ হেন কবুলনামার নেপথ্যে রয়েছে আসন্ন বিয়ে। সে যতই ব্যাপারটা ঢাকা চাপা দিয়ে রাখতে চান না কেন তাঁরা! আসলে এখনও যদি ভালোবাসার কথাটা স্বীকার না করেন, তা হলে তো চলতি ট্রেন্ড অনুযায়ী সোশ্যাল মিডিয়ায় বিদ্রুপের কেন্দ্রে এসে দাঁড়াতে হবে। তাই সেটা যেমন জানালেন, তেমনই এটাও জানিয়ে রাখলেন- কেন রণবীরকে বিয়ে করতে বাধ্য হচ্ছেন তিনি!

deepveer

“রণবীর খুবই সৎ একজন মানুষ। ও কোনো দিন কারও সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করে না। সবাইকে মর্যাদা দিতে জানে। সব চেয়ে বড়ো কথা, এই প্রথম আমি একজন রক্তমাংসের মানুষকে আবিষ্কার করলাম। এই পুরুষ কাঁদতে জানে। নিজের দুর্বলতা ঢেকে রাখে না। এই জায়গাটাই আমায় সব চেয়ে বেশি মুগ্ধ করেছে। সত্যি বলতে কী, ওকে বিয়ে করতে বাধ্য করছে”, জবানবন্দি দীপিকার!

deepveer

বলিউড বলছে, আসন্ন এই বিয়ের জন্যই না কি হাতে আর ছবি নিচ্ছেন না দীপিকা। পিঠের ব্যথা আসলে একটা অজুহাত! প্রশ্নটা তোলা হলে এ বার কিন্তু বিষয়টা এড়িয়ে গিয়েছেন নায়িকা। জানিয়েছেন, ‘পদ্মাবত’ করার পর তাঁর একটা লার্জার দ্যান লাইফ ভাবমূর্তি তৈরি হয়ে গিয়েছে। সেই ভাবমূর্তির সঙ্গে খাপ খায়, এমন কোনো চিত্রনাট্যেরই খোঁজে রয়েছেন তিনি। পেলেই ফিরবেন লাইট-ক্যামেরা-অ্যাকশনের জগতে!

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here