ওয়েবডেস্ক: আপনিই বলুন দেখি- উৎসবের দিনে ঝগড়াঝাটি মানায়?

এই ফাঁকে টুক করে এটাও বলে না রাখলেই নয়- দেব আর প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের মধ্যে কিন্তু ঠিক গত বছরের পুজোয় দারুণ ঝগড়া হয়েছিল! তা ছাড়া সত্যি বলতে কী, দেব আর প্রসেনজিতের প্রতিদ্বন্দ্বিতা বরাবরই দেখে এসেছে টলিপাড়া। এমনকি, তাঁরা দু’জনে যখন এক সঙ্গে স‌ৃজিত মুখোপাধ্যায়ের ‘জুলফিকার’ ছবি করলেন, তখনও দু’জনকে দেখা গিয়েছিল পরস্পরের প্রতিদ্বন্দ্বী চরিত্রেই। সেই বিবাদ এক ধাক্কায় সামনে এল যখন গত পুজোয় একই সময়ে মুক্তির তারিখ ধার্য হল দেবের ‘ককপিট’ আর প্রসেনজিতের ‘ইয়েতি অভিযান’-এর।

আরও পড়ুন: কিশোর কুমার জুনিয়র: আধুনিক দুর্গার অসুর-বধের ব্র্যান্ডেড গপ্পো

 

View this post on Instagram

 

#Spirit #loveforcinema

A post shared by Prosenjit Chatterjee (@prosenstar) on

বিবাদ বাড়ল, যখন প্রসেনজিতের অনুরোধেও ছবির মুক্তি দেব পিছিয়ে দিলেন না। শুধু তা-ই নয়, ‘ককপিট’-এর ট্রেলারে প্রসেনজিৎ-অভিনীত চরিত্রের ঝলক দেখা গেল। অভিযোগ উঠেছিল, দেব এ ভাবে নিজের ছবির দিকে বেশি দর্শক টানতে চাইছেন! মানে একটা বিভ্রান্তি তৈরির প্রয়াস- এই ছবিতেও রয়েছেন দুই নায়ক! যাই হোক, সে সব পেরিয়ে এসে এ বার ফের বক্স অফিসে মুখোমুখি তাঁরা- ‘হইচই আনলিমিটেড’ বনাম ‘কিশোর কুমার জুনিয়র’-এর ব্যবসায়িক সাফল্যের প্রসঙ্গে!

তা, সবে তো মুক্তি পেয়েছে ছবিদুটো! এখনই কী আর বলা যায়- কোনটা বেশি দর্শক টানবে আর কোনটা মাছি তাড়াবে! সে পরের ব্যাপার! আপাতত কিন্তু সব প্রতিদ্বন্দ্বিতা ভুলে প্রসেনজিতের প্রশংসাতেই পঞ্চমুখ হয়েছেন দেব! নিজের গলায় প্রসেনজিতের ‘অমর সঙ্গী’ ছবির একটা গান গেয়ে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রসেনজিৎকে। সেই টুইট ভিডিওর সঙ্গে আবার লিখতে ভোলেননি- ৩৫ বছর ধরে যে ভাবে বাংলা ছবির ইন্ডাস্ট্রি শাসন করেছেন প্রসেনজিৎ, এই পুজোতেও যেন বক্স অফিস সে ভাবেই শাসন করেন! পাশাপাশি, কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়কে ঋতুপর্ণ ঘোষের পরেই বাংলা ছবির সেরা পরিচালকের তকমাও দিয়েছেন দেব!

দেখা যাক, দেবের কথা সত্যি হয় কি না!

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন