ওয়েবডেস্ক: এ বারে সব কিছু ধীরে ধীরে স্পষ্ট হচ্ছে। বোঝা যাচ্ছে, কেন রোজ সংবাদমাধ্যমে নিদেনপক্ষে একটি খবর করিনা কাপুর খান আর সইফ আলি খানের ছেলে তৈমুর আলি খানকে নিয়ে দেখতেই হয়!

taimur ali khan

বিজ্ঞাপন

এবং সেই ব্যাপারটা খোলসা করছেন করিনা নিজেই! প্রথমে তৈমুর যে দেশের সব চেয়ে কম বয়সের সুপারস্টার, এ কথাটা তিনি স্পষ্ট করেছেন এক পুরস্কার বিতরণী সভায় এসে, অক্ষয় কুমারকে বিদ্রুপ করে। কেন না, মুম্বইয়ের ওই সভায় অক্ষয় কুমারও উপস্থিত ছিলেন। এবং জানতে চাওয়া হয়েছিল নায়িকার কাছে- এই যে এর মধ্যেই সুপারস্টার হয়ে উঠেছে তৈমুর, ব্যাপারটা তাঁর কেমন লাগে?

“অক্ষয়, তৈমুর কিন্তু তোমার পক্ষে এক বড়োসড়ো হুমকি! বলছি তোমাকে, বিশ্বাস করো! ফ্যান ফলোয়িংয়ের দিক থেকে তো ও তোমায় ছাপিয়ে যাওয়ার ক্ষমতা রাখেই! আর যদি তৈমুরের সঙ্গে একটা ছবি করো, দেখবে তোমার থেকে বেশি উপার্জন ও করছে! ব্যাপারটা ভুলো না, সরাসরি চ্যালেঞ্জ করছি তোমায়”, বলেছেন নায়িকা! বিশ্বাস না হলে শুনে নিন ভিডিওয়!

kareena kapoor khan

তার পরে এ বার যা বললেন, তাতে স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে যে ইচ্ছে করেই ছেলেকে প্রচারের আলোয় রাখেন সইফিনা। যাতে বড়ো হয়ে ক্রিকেট বা অভিনয় সংক্রান্ত যে পেশাই বেছে নিক না কেন তৈমুর, ভক্তের অভাব যাতে না হয়!

kareena kapoor khan

“আমাদের ছেলে যে এতগুলো লোকের মুখে হাসি ফোটাতে পারে, সে ব্যাপারটায় আমি আর সইফ রীতিমতো গর্বিত। আমরা ব্যাপারটাকে সদর্থক দিক থেকেই দেখছি এবং সেই মতো এগিয়ে চলেছি”, জানিয়েছেন করিনা।
এগিয়ে চলার মানেটা কী?

তৈমুরকে নিয়ে আরও একটা কথা জানিয়েছেন করিনা! তিনি চান, ছেলে অভিনয় জগতে নয়, বরং ঠাকুর্দার মতো ক্রিকেটের দুনিয়ায় আসুক! ‘আমি চাই, তৈমুর একজন ক্রিকেটার হোক’, জানিয়েছেন করিনা! অস্বাভাবিক কিছু নয়, তৈমুরের ঠাকুরদা মনসুর আলি খান পতৌদি তো ভারতের পয়লা সারির ক্রিকেটার ছিলেনই, অধিনায়কত্বও করেছেন ভারতীয় ক্রিকেট দলের। এ বার যদি বংশের সেই পরম্পরা নাতিতে বর্তায়, আশ্চর্য হওয়ার কী আছে!

Kareena Kapoor and taimur

এ বার ব্যাপারটা বোঝা যাচ্ছে তো?

kareena kapoor khan

করিনা কিন্তু এর মধ্যেই নিজেকে দেশের সব চেয়ে কম বয়সের সুপারস্টারের মা হিসাবে দাবি করছেন! “লোকে আজকাল বুঝতে পারে না আমায় সুপারস্টার হিসাবে চিনবে না কি দেশের কনিষ্ঠতম সুপারস্টারের মা হিসাবে চিনবে”, বক্তব্য নায়িকার!

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here