খবরঅনলাইন ডেস্ক: অভিনেত্রী কঙ্কনা সেন শর্মা মনে করেন, ভয়ের কারণেই ‘ঐক্যবদ্ধ ভারত’-এর হয়ে এক সুরে কথা বলছেন ক্রিকেট এবং বিনোদন জগতের তারকারা।

দু’ মাস ধরে দেশে কৃষক আন্দোলন চলছে। এই ব্যাপারে কার্যত কোনো তারকাকেই মুখ খুলতে দেখা যায়নি। কিন্তু এই আন্দোলন নিয়ে আন্তর্জাতিক মহলের প্রতিক্রিয়া শুরু হতেই আচমকা তেড়েফুঁড়ে ওঠেন তারকারা। বুধবার রাত থেকেই টুইটারে ঘোরাফেরা করছে ‘ঐক্যবদ্ধ ভারত’-এর আহ্বান। বিষয়টি নিয়ে সরব হয়েছেন অক্ষয় কুমার থেকে সচিন তেণ্ডুলকার, লতা মঙ্গেশকর, বিরাট কোহালি, অজয় দেবগণ, কর্ণ জোহর, সাইনা নেহাওয়ালের মতো তারকারা।

‘অপপ্রচারের বিরুদ্ধে ভারত’ হ্যাশট্যাগে আন্তর্জাতিক মহলের নিন্দার বিরোধিতা করেছেন সকলেই। সেই সঙ্গে প্রত্যেকে তুলে ধরেছেন বিদেশমন্ত্রকের জারি করা একটি টুইটার-বিবৃতি। অনেক ক্ষেত্রেই দেখা গিয়েছে, তারকারা হুবহু এক টুইট করে দিচ্ছেন। এমনকি একটি বিশেষ ইংরেজি শব্দ সবার টুইটেই দেখা যাচ্ছে।

বুধবার রাতে অমিত বর্মা নামক এক সাংবাদিক টুইটারে এই প্রসঙ্গেই একটি টুইট করে ফেলেন। টুইটারে তিনি জানতে চান, “মাঝে মধ্যেই আমার মনে হয়, বলিউড অথবা ক্রিকেট তারকারা যখন, যা যা করেন, তা কি গাজরের জন্য নাকি, অন্য হাতে থাকা লাঠিটাই তাদের এ সব করতে বাধ্য করে!”

ব্যাপারটা আর একটু স্পষ্ট করে অমিত জানতে চান, “আমাদের দেশের তারকারা যে পরিমাণ ধনী, তাতে ঘুষ দেওয়া যাবে বলে মনে হয় না, তবে কি তাঁরা ভয় পেয়েই এত হট্টগোল? কিন্তু কীসের ভয়? আশা করি তারকাজগতের মধ্যে থেকে কেউ আমাকে সঠিক জবাব দেবেন।” অর্থাৎ, ‘গাজর’ এবং ‘লাঠি’র উপমা দিয়ে তিনি নরমে-গরমে কাজ করিয়ে নেওয়ার কৌশলের দিকেই ইঙ্গিত করেন।

এই প্রশ্নের জবাব দিতে এগিয়ে আসেন বিনোদন জগতেরই এক প্রতিনিধি। তিনি বঙ্গতনয়া কঙ্কনা। অমিতের টুইটের জবাবে কঙ্কনা লেখেন, “আমার মতে বেশির ভাগের ক্ষেত্রেই ভয়ই কাজ করে।”

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

বিজেপির ‘বিপদ’ বোঝাতে মানিক সরকারকে হাতিয়ার করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন