ওয়েবডেস্ক: আমাদের এই তাহার নামটি তিয়ানা! পুরো নাম তিয়ানা ফ্রলকিনা! যাঁর লাস্যে এবং তার চেয়েও বেশি করে শারীরিক নমনীয়তায় মজেছে দুনিয়া।

তা বলে এই নর্তকী যে হালফিলে নেট-দুনিয়ায় ভাইরাল হয়েছেন, এমনটা ভাবার কোনো কারণ নেই। জন্মসূত্রে রাশিয়ান এই রমণীকে দুনিয়া বরাবরই এক ডাকে চেনে। যে কারণে বাড়ি রাশিয়ায় হলেও নৃত্যসূত্রে তিনি বিশ্বগ্রামের বাসিন্দা।

tiana frolkina

তথ্য বলছে, রাশিয়ার স্যান পিটার্সবুর্গে জন্ম হয়েছিল তিয়ানার। ছোটো থেকেই নাচ ছিল একমাত্র পছন্দের বিষয়। বড়ো হয়েও সেই পছন্দের জায়গা থেকে এক তিলও সরে আসেননি তিনি। বরং, দিনের পর দিন নিরলস অনুশীলনের মাধ্যমে তৈরি করেছেন চোখ কপালে তোলা এক সিগনেচার মার্ক।

সেই সিগনেচার মার্ক একান্ত ভাবেই অননুকরণীয়! আর কে-ই বা এত ক্ষমতা ধরেন শরীরকে মর্জিমাফিক দুমড়ে-মুচড়ে নৃত্যশৈলী বের করে আনার! দেখলে অবাক হয়ে যেতে হয়- নৃত্য পরিবেশনের সময় হাঁটছেন বা স্রেফ দাঁড়িয়ে রয়েছেন এই রমণী, শরীরের নিম্নভাগ স্থির অথবা নৃত্যছন্দে বিন্যস্ত নেই- অথচ শরীরের ঊর্ধ্বাংশে তরঙ্গের পর তরঙ্গ তুলছে বিভঙ্গেরা!

তিয়ানার এই নাচের কিছু কিছু দিক আমাদের চোখে বেশ চেনা ঠেকবে। মূলত বেলি ডান্স-ই তাঁর নৃত্যশৈলীর মূল অবলম্বন। কিন্তু সাজসজ্জায়, হাত-পা প্রক্ষেপণের মুদ্রায় উঠে আসে ভারতের বড়ো আদরের ভরতনাট্যম বা মোহিনীআট্টমের প্রভাব। যা যেমন দর্শকের চোখে ধাঁধা জাগায়, তেমনই আনন্দে পূর্ণ করে মনটিকে।

তবে দুনিয়া যা-ই বলুক না কেন এই নৃত্যশৈলীকে, তিয়ানা নিজে একে বলে থাকেন ‘ট্রাইবাল ডান্স’। সঙ্গত এই যুক্তিতে নিজের পরিচয়ও দেন তিনি ‘ট্রাইবাল ডান্সার’ শব্দবন্ধে। বিশেষ এই নৃত্যশৈলী তাঁর এতটাই জনপ্রিয় যে প্রতি বছর নিয়ম করে এক বাৎসরিক অনুষ্ঠানেরও আয়োজন করে থাকেন তিয়ানা। সেই অনুষ্ঠানের নাম ‘সোলারিস ট্রাইবাল ফেস্ট’।

কিন্তু এই ট্রাইবাল ডান্সকে শুধু নিজের শরীরেই সীমিত করে রাখেননি নর্তকী। রীতিমতো ডান্স অ্যাকাডেমি তৈরি করে ইচ্ছুকদের এই নাচ শেখান তিয়ানা। তাঁর সেই নৃত্যসংস্থার নাম ‘ড্র্যাগনফ্লাই ট্রাইব ডান্স কোম্পানি’।

tiana frolkina

আপনাদের জন্য রইল তিয়ানার মুগ্ধ করা দুই নাচের ভিডিও। একটি নিজেদের ফেসবুক পেজ-এ শেয়ার করেছে ‘বেলিম্যানিয়াকাস’ নামের এক নৃত্যনিবেদিতপ্রাণ গোষ্ঠী। অন্য ভিডিওটি ইউটিউব-এর। সেখানে দেখা যাবে তিয়ানার এক বিশ্বজয়ী নৃত্যানুষ্ঠানের কয়েক ঝলক!

বলাই যায়, তা রীতিমতো লজ্জায় ফেলবে বাবা রামদেবকেও! নানা মাধ্যমের সম্প্রচারের দৌলতে আমরা তো এটাই বিশ্বাস করতে শিখে গিয়েছি যে তাঁর শারীরিক নমনীয়তা তুলনাবিহীন!

একবার চোখ রাখুন না ভিডিওদুটোয়! তার পর বিচারের ভার নিন নিজেই! আপনি যে সিদ্ধান্ত নেবেন, সেটাই স্বাগত!

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here