চেন্নাই: আইপিএলের ম্যাচ দেখতে বসলেই টিভির পর্দায় ভেসে উঠছে ভোডাফোন ৪জি’র বিজ্ঞাপন, যেখানে দেখা যাচ্ছে এক বৃদ্ধ দম্পতির গোয়া ভ্রমণ। বৃদ্ধ কখনও হাতে ট্যাটু করে তাঁর সন্তানকে চমকে দিচ্ছেন, অন্ যদিকে বৃদ্ধা করছেন প্যারাসেলিং, যেখানে তাঁর স্বামী ‘ফেসবুক লাইভ’ করছেন কি না, সে ব্যাপারেই তাঁর বেশি নজর। এই বৃদ্ধা দম্পতির আসল পরিচয় জানেন, জানলে চমকে উঠবেন।

চেন্নাই নিবাসী সত্তরোর্ধ্ব দম্পতি শান্তা ধনঞ্জয়ন এবং ভিপি ধনঞ্জয়ন কোনো সাধারণ মানুষ নন। দু’জনেই বিখ্যাত ভরতনাট্যম শিল্পী। দু’জনেই পদ্মভূষণে ভূষিত। দু’জনে নাচের শিক্ষক এবং একটি ব্যবসার পাশাপাশি নাচের স্কুলও চালান।

প্রসঙ্গত এই বিজ্ঞাপনটি যারা করেছে সেই ওগিলভি সংস্থায় চাকরি করেন দম্পতির বড়ো ছেলে। কিন্তু তাঁর বাবা-মা যে এই বিজ্ঞাপনটি করবেন, সে ব্যাপারে কোনো ধারণাই ছিল না তাঁর।

কেমন লাগল এই বিজ্ঞাপনে অভিনয় করে? প্রশ্নের উত্তরে ধনঞ্জয়ন বলেন, “হঠাৎ করেই সব কিছু হয়ে গেল। গোয়াতে পৌঁছনোর পরের দিন থেকেই শ্যুটিং শুরু। স্কুটার চালানো আমি জানতাম না, তাই এক জন প্রশিক্ষক নিতে হয়েছিল।”

বিজ্ঞাপনে মাঝেমধ্যেই হাফপ্যান্ট পরতে দেখা গিয়েছে ধনঞ্জয়নকে। সেই পোশাক নিয়েও তিনি যে কিছুটা সমস্যায় পড়েছিলেন সে কথাও স্বীকার করে নেন তিনি। বলেন, “শান্তাকে শাড়িই পড়তে হয়েছিল কিন্তু আমার পক্ষে প্যান্ট-শার্ট পরাটা একটু সমস্যার ছিল, কারণ ‘ভেস্তি’ (ধুতি) এবং ‘জিপ্পা’তেই (কুর্তা) আমি সন্তুষ্ট বেশি।”

নিজেরা নৃত্যশিল্পী হলেও নৌকায় নাচের দৃশ্যটি দু’জনের কাছে চ্যালেঞ্জ ছিল সেটাও বলেন দু’জনের। তবে গোটা শ্যুটিং টিমের কাছে যে সহায়তা তাঁরা পেয়েছেন সে জন্য পুরো টিমের কাছে তাঁরা কৃতজ্ঞ, পাশাপাশি ধন্যবাদ জানাচ্ছেন দর্শকদেরও যাঁদের থেকে অসাধারণ সব শুভেচ্ছাবার্তা পেয়েছেন এই ধনঞ্জয়ন দম্পতি।

দেখুন ওই দম্পতির নাচের একটি দৃশ্য

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here