কালী-বিতর্ক: মহুয়া মৈত্রকে কেন বরখাস্ত করছেন না? মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে প্রশ্ন চলচ্চিত্র নির্মাতার

0

কলকাতা: ‘মা কালী’ নিয়ে মন্তব্যের জেরে বিতর্কে কৃষ্ণনগরের সাংসদ মহুয়া মৈত্র। তাঁর মন্তব্য নিয়ে দায় এড়িয়েছে তৃণমূলও। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে উদ্দেশ্য করে বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন চলচ্চিত্র নির্মাতা অশোক পণ্ডিতও।

চলচ্চিত্র নির্মাতা লীনা মানিমেকালাই তাঁর একটি তথ্যচিত্রের পোস্টার শেয়ার করেছেন। সেই ছবি নিয়ে বিতর্কের জন্ম দিয়েছে। ছবিতে একজন কৃষ্ণাঙ্গ মা সিগারেট খাচ্ছেন এবং এলজিবিটি সম্প্রদায়ের পতাকা ধারণ করেছেন। এই ছবি নিয়েই ছড়িয়েছে বিতর্ক। পরিচালকের পাশে দাঁড়িয়েছেন তৃণমূল নেত্রী মহুয়া মৈত্র। তার পরে ঘৃতাহুতি পড়েছে এই ঘটনায়।

লীনা মানিমেকালাইকে রক্ষা করে মহুয়া মৈত্র বলেন, “মা কালীকে আপনি কী ভাবে গ্রহণ করবেন তা আপনার ব্যাপার। আমার কাছে মা কালী একজন আমিষভোজী এবং মদ্যপানকারী দেবী। এই ছবির পোস্টার নিয়ে আমার কোনো আপত্তি নেই”।

মহুয়ার বক্তব্য নিয়ে বিতর্ক শুরু হলে, তৃণমূলের পক্ষ থেকে টুইট করে মন্তব্যের বিরোধিতা করা হয়েছে। তা নিয়েই প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন অশোক পণ্ডিত। টুইটারে লেখেন, “মহুয়া মৈত্র সমর্থন করছেন লীনা মানিমেকালাইকে। যিনি আমাদের দেবী কালী মা-কে অপমান করছেন। তাঁদের কাছে হিন্দুরা কিছু যায় আসে না”।

শুধু তাই নয়, বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে প্রশ্ন করেছেন অশোক। লেখেন, “আপনি মহুয়া মৈত্রকে বরখাস্ত করে তাঁর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিচ্ছেন না কেন”?

উল্লেখ্য, কালী-বিতর্কে প্ররোচনামূলক পোস্টার সরানোর দাবি জানিয়ে কানাডার দারস্থ হয়েছিল ভারত। গোটা বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকা আগা খান মিউজিয়াম ক্ষমা প্রার্থনা করেছে।

আরও পড়তে পারেন:

রান্নার গ্যাসের সিলিন্ডারে ফের বাড়ল ৫০ টাকা, আপনাকে কত দিতে হবে

ভারতের দৈনিক কোভিড সংক্রমণে সামগ্রিক বৃদ্ধি নেই, মৃত্যুহার নগণ্য

আদালতে গড়াল কেন্দ্র বনাম টুইটার যুদ্ধ!

মুখ্যমন্ত্রী না হতে পেরে অসন্তুষ্ট? জল্পনা ওড়ালেন খোদ দেবেন্দ্র ফড়ণবীস

ঋষি সুনক-সহ দুই মন্ত্রীর পদত্যাগ, ব্রিটেনে আতান্তরে পড়ল বরিস জনসন সরকার

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন