ওয়েবডেস্ক: সম্প্রতি টাইমস গোষ্ঠী নতুন প্রজন্মের গ্যাজেট নির্ভরতা নিয়ে একটি সমীক্ষা চালিয়েছিল, এ বিষয়ে মতামত চেয়েছিল সেলেব্রিটি মায়েদের কাছে। দেখা গেল, প্রকারান্তরে হলেও ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত স্বীকার করে নিয়েছেন তাঁর মেয়ে রিশোনার মোবাইল প্রীতির কথা। “আমার মেয়ের এখন বছর সাতের! আরও ছোটো ছিল যখন, একদিন আমার একটা পুরনো ফোন কেড়ে নিয়েছিল! সেই ফোন থেকে ও নানা লোকজনকে কল করত, ভয়েস মেসেজ পাঠিয়ে দিত। ঘাঁটাঘাঁটি করতে করতে নিজেই শিখে গিয়েছিল কী ভাবে স্মার্টফোন ব্যবহার করতে হয়! ওর বয়সি বাচ্চাদের গ্যাজেট থেকে দূরে রাখা খুব সত্যিই খুব কঠিন কাজ! আসলে ওদের বাইরের পৃথিবী এত ছোটো হয়ে আসছে! তাই আমি যতটা পারি, মেয়েকে বাইরে গিয়ে খেলাধুলোয় উৎসাহ দিই”, জানিয়েছেন নায়িকা।

আরও পড়ুন: প্রেমের শ্রদ্ধাঞ্জলি, কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায়ের পরিচালনায় ঋতুপর্ণর ভূমিকায় এ বার প্রসেনজিৎ?

Momma-daughter moment! #Shootingdays #AmaarLabongolota #Behindthecamera

A post shared by Rituparna Sengupta (@rituparnaspeaks) on

আর তার পরেই এ প্রসঙ্গে নায়িকার এক সময়ের প্রাক্তন প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের স্ত্রী অর্পিতা চট্টোপাধ্যায় যা বলছেন, তা একটু খেয়াল না করলেই নয়! “অজস্র কারণ রয়েছে নতুন প্রজন্মের এ ভাবে গ্যাজেটনির্ভর হয়ে পড়ার নেপথ্যে। আজকাল বেশির ভাগ পাড়াতেই পার্ক বলে, খেলার জায়গা বলে কিছু থাকে না। নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে বড়োরাও আর আগের মতো বাচ্চাদের দল বেঁধে বাইরে খেলতে পাঠান না! স্কুলেই বা আর খেলাধুলোর কতটা সময় পায় নতুন প্রজন্মের বাচ্চারা! তাই তারা অনলাইনে স্পোর্ট শো দেখে, ভিডিও গেম খেলে, সোশ্যাল মিডিয়ায় সময় কাটায়! আমার ভাগ্য ভালো যে মিশুককে খুব ছোটো থেকেই বোর্ডিংয়ে রেখেছিলাম! সেখানে কড়া শাসনে মানুষ হয়েছে বলে গ্যাজেট নিয়ে ওর কোনো মাথাব্যথাই নেই”, দাবি অর্পিতার!

এ বার বলুন, কী বুঝছেন?

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন