ওয়েবডেস্ক: যা দেখা যাচ্ছে, ছবির পর্দায় হইচই শুরু হওয়ার আগেই তা নিয়ে আনলিমিটেড বিতর্ক শুরু হয়ে গিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়! প্রথমে বাংলা দৈনিকের এক সাংবাদিক ছবিটিকে পাকিস্তানি ছবির রিমেক বলে টুইট করায় তাঁকে পড়তে হয় পুলিশি জেরার মুখে। কেন এই থানা-পুলিশ, তা নিয়ে ছবির পরিচালক অনিকেত চট্টোপাধ্যায় এক দীর্ঘ বিবৃতি দিয়েছিলেন নিজের ফেসবুক হ্যান্ডেল মারফত! কী বলেছিলেন তিনি, তা সরাসরি পড়ে নিতে পারেন নীচের লিঙ্কে ক্লিক করে!

আরও পড়ুন: ‘হইচই আনলিমিটেড’ পাক-ছবির রিমেক, পরিচালক-প্রযোজকের সাংবাদিককে নিয়ে প্রকাশ্য তরজা থানা-পুলিশের পরেও

কিন্তু বিতর্ক থামল না সেখানে! কেন না, টলিপাড়ার জনপ্রিয় আরেক নায়ক রাহুল অরুণোদয় বন্দ্যোপাধ্যায় এ বার সেই পোস্টের নীচে কমেন্ট করে যেমন পড়েছেন পরিচালকের তীব্র কটাক্ষের মুখে, তেমনই তাঁর দাবি নানা প্রশ্ন তুলছে! নিজের মন্তব্যে প্রশ্ন তুলেছেন রাহুল- রিমেক লজ্জার বিষয় নয়, অতএব থানা-পুলিশ করাটা নেহাতই ‘গেস্টাপোগিরি’! ঠিক সরকারের বিরুদ্ধে মুখ খুললে হিটলারের জমানায় যা হতো, সেটাই হচ্ছে বাংলার বুকেও!

 

View this post on Instagram

 

All Time #HoichoiUnlimited

A post shared by Dev Adhikari (@imdevadhikari) on

এর পরে দেখতে দেখতে বিতর্ক বেড়েই চলে! পরিচালকের পাল্টা প্রশ্ন ভেসে আসে- তা হলে কি প্রকারান্তরে সাংসদ দেব এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারকে ‘ফাসিস্ত’ বলতে চেয়েছেন রাহুল? রাহুল যথাসাধ্য নিজের বক্তব্য পরিষ্কার করার চেষ্টা করছেন, বলতে চাইছেন যে তিনি দেবের রাজনৈতিক সত্তা মাথায় রেখে কিছু বলতে চাননি, কিন্তু তাতে লাভ হচ্ছে না! শেষ পর্যন্ত বিষয়টি পৌঁছেছে ঝগড়ায় এবং দাবি করেছেন নায়ক- তিনি প্রমাণ দিতে পারেন অনিকেতের অনেক ছবিই টুকলি! মন্তব্য এবং পরিপ্রেক্ষিতে সওয়াল-জবাব এমবেড করে দেওয়া হল, এ বার বলুন- আপনার কী মনে হয়?

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন