hollywood

ওয়েবডেস্ক: পৃথিবী জুড়ে অনেক নারীই যে প্রতি নিয়ত যৌন নির্যাতনের শিকার, তা কোনো নতুন কথা নয়। পৃথিবীর সব দেশেরই বিনোদন কারখানা যে কাজের সুযোগ করে দেওয়ার অছিলায় নারীদের ব্যবহার করে, সে-ও পুরনো বিষয়। কিন্তু পুরনো বছর যেরকম শেষ হয়ে গিয়েছে, ঠিক সেরকম ভাবেই কি এবার এই যৌন নির্যাতনের পুরনো চেহারাটাও মুছে ফেলা যায় না পৃথিবীর বুক থেকে?

হলিউড কিন্তু সেই চেষ্টায় এক পা এগিয়ে গিয়েছে। ২০১৭-র প্রায় গোটাটা জুড়েই নানা সারির নানা নায়িকা অভিযোগ দায়ের করেছেন যে প্রযোজক-পরিচালকরা তাঁদের খেলনার মতো ব্যবহার করেন। সেই দিক থেকেই মূলত শুরু হয়েছে হলিউডের নায়িকাদের জেহাদ। লড়াইয়ে তাঁদের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন হলিউডের বহু চিত্রনাট্যকার, পরিচালক, আলোকচিত্রীও। তাঁরা এই সমবেত প্রচেষ্টায় গড়ে ওঠা ক্যাম্পেনটির নাম দিয়েছেন টাইমস আপ। সম্প্রতি যার বিজ্ঞাপন বড়ো করে গোটা একটা পাতা জুড়ে ছাপা হয়েছে নিউ ইয়র্ক টাইমস দৈনিকে।

এই জেহাদের এক দিকে যেমন রয়েছেন এমা স্টোন, নাতালি পোর্টম্যানের মতো এই সময়ের নায়িকারা, তেমনই বাদ যাচ্ছেন না বহু বছর ধরে হলি্উডে জনপ্রিয় কেট ব্ল্যানশেটের মতো ডাকসাইটে নায়িকাও। ঘুরে ঘুরে তাঁরা এখন টাকা তুলছেন এই টাইমস আপ ক্যাম্পেনের হয়ে। উদ্দেশ্য একটাই- সেই সম্মিলিত প্রচেষ্টায় জড়ো হওয়া ফান্ডের টাকা কাজে আসুক কর্মক্ষেত্রে যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছেন এমন ব্যক্তিদের। সে তিনি নারীই হোন বা পুরুষ হোন! কেন না, যৌন নির্যাতনের শিকার মূলত নারীরা হলেও পুরুষদেরও তার সম্মুখীন হতেই হয়।

টইমস আপ ক্যাম্পেনের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, যৌন নির্যাতনের শিকাররা বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই সুবিচার পান না অর্থনৈতিক কারণে। সব সময় সবার পক্ষে আদালতে মামলা চালিয়ে যাওয়া সম্ভব হয় না। সে ক্ষেত্রে এবার সেই সব মানুষদের টাকা জোগাবে হলিউড। শুধু সিনেমার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরাই নন, এই সুযোগ পাবেন যে কেউই! আপাতত এই উদ্যোগ হলিউডে সীমিত থাকলেও পরে তার প্রসারক্ষেত্র সারা বিশ্বেই নিয়ে যাওয়ার কথা ভাবছে হলিউড।

কাকতালীয় ভাবে হলেও ২০১৭-য় কর্মক্ষেত্রে যৌন হেনস্তার বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলেছেন বলিউডের অনেক নায়িকারাই। কঙ্গনা রানাউত যেমন এক দিকে অনেক বছর ধরেই পুরুষশাসিত বলিউডের নিয়ম-নীতির সমালোচনায় মুখর হয়েছেন, তেমনই রিচা চড্ডাও অকপটে জানিয়েছেন- বলিউড নায়িকাদের সুযোগ নিতে ছাড়ে না। সব রকম ভাবেই তাঁদের ব্যবহার করে। রিচা এ-ও দাবি করেছিলেন, সেই সব ঘটনা প্রকাশ্যে এলে বলিউডের অনেক প্রথম সারির নায়কের কাজ বন্ধ হয়ে যেতে পারে! রিচার এই বক্তব্যকে সমর্থন জানিয়েছিলেন ফারহান আখতারের মতো মুক্তমনা নায়কও।

কিন্তু, আজও হলিউডের মতো যৌন নির্যাতনের শিকার হওয়া মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য কিছু করে উঠতে পারল না বলিউড। এবার কি তার সচেতন হওয়ার পালা?

হলে ক্ষতি কী! হলিউডের অনেক ছবিই তো নকল করে মুনাফা তোলে বলিউড, অনেক দিন ধরেই চলছে এই অনুকরণের প্রথা। এবার তা এ দিক থেকে অনুসরণে বদলে গেলে কি ভাবমূর্তিই আখেরে উজ্জ্বল হবে না?

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here