ওয়েবডেস্ক: যে দিন নায়িকা কাথুয়া এবং উন্নাও গণধর্ষণ কাণ্ডের প্রতিবাদে সরব হয়েছিলেন, টুইট করেছিলেন ‘আমি ভারতবর্ষ এবং আমি লজ্জিত’ বলে, সে দিন থেকেই তিনি শিকার হয়েছেন উগ্র হিন্দুত্ববাদীদের বিদ্বেষের! এটাও বলা হয়- কেন তিনি মেক-আপ করে প্রতিবাদ করছেন! এর পর ঘটনা স্পষ্ট ভাবেই অতিক্রম করে শালীনতার সীমা। স্বরা যখন উত্তরে জানান, তিনি ঘটনাটা যখন জানতে পারেন, সে দিন শুটিংয়ের মাঝে ছিলেন, তখন তাঁর টুইট ফটোশপে বিকৃত করা হয়। জুড়ে দিয়ে তাঁর বক্তব্যে লেখা হয়, নায়িকা পয়সা নিয়ে এ ভাবে টুইটে পণ্য প্রচার করছেন। যাই হোক, সত্যিটা সামনে আনতে স্বরার সময় লাগেনি! যাতে বিদ্বেষের মাত্রা বেড়েছিল বই কমেনি!

tweet

ফলে যখন ‘বীরে দি ওয়েডিং’ ছবিতে স্বরা ভাস্করের হস্তমৈথুনের দৃশ্য নিয়ে হইচই শুরু হল, অদ্ভুত ভাবে ব্যঙ্গ করা হতে থাকল তাঁর ওই ‘আমি ভারতবর্ষ এবং আমি লজ্জিত’ কথাটাকে নিয়েই। জনৈক টুইটারেতি লিখলেন- তিনি তাঁর ঠাকুরমাকে নিয়ে ছবিটা দেখতে গিয়েছিলেন! হস্তমৈথুনের দৃশ্যটি শুরু হওয়ার পরে তাঁরা দু’জনেই একপ্রকার ছিটকে প্রেক্ষাগৃহ থেকে বাইরে চলে আসেন! এসে ঠাকুরমা জানান, “আমি ভারতবর্ষ এবং আমি বীরে দি ওয়েডিং নিয়ে লজ্জিত”!

এবং যে কোনো কারণেই হোক, এই একই বক্তব্য, তাও আবার হু-বহু, টুইটারে পোস্ট করতে থাকলেন অনেকেই! সবাই খড়্গহস্ত স্বরার এই স্বমেহন নিয়ে, হোক না তা অভিনয়! যদিও কিছু টুইটারেতি স্বরার পক্ষ নিয়ে এটা টুইট করতেও ছাড়লেন না- দেশ জুড়ে এত মানুষ তাঁদের ঠাকুরমাদের নিয়ে ছবিটা দেখতে যাচ্ছেনই বা কেন!

স্বরার কাছে অবশ্য এই টুইট কপি-পেস্ট করার যুক্তি রয়েছে। জনসমর্থন, অল্প হলেও, পাওয়ার পর আর চুপ করে রইলেন না নায়িকা! সাফ লিখলেন টুইটারে- “বোধ হয় কোনো তথ্যপ্রযুক্তি সেল টিকিটের টাকাটা প্রযোজনা করছে… অন্তত টুইটগুলো তো বটেই”! পাশাপাশি এক টুইটারেতি যখন দেখিয়ে দিলেন ওই সব টুইটেই হস্তমৈথুনের ইংরেজি প্রতিশব্দটির বানান ভুল আছে, তখন তা হাসির রোল তুলল!

swara bhaskar

কিন্তু পুরুষতন্ত্র এবং উগ্র হিন্দুত্ববাদ, যা দেখা যাচ্ছে, নায়িকাকে এত সহজে রেহাই দিতে রাজি নয়। ফলে, এ বার বিদ্রুপ উঠল চরমে! বা বলা ভালো হুমকি! একটি এডিট করা টুইট ভিডিওয় বলা হল- সব উত্তেজনা পবিত্র ওম দিয়ে প্রশমিত করা হবে! কেন না, ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে, স্বরা হস্তমৈথুন করছেন এবং একটি পুরুষ ওম প্রতীক এনে ধরছেন তাঁর সামনে। সেই পুরুষটির বক্তব্য- স্বরা মানুষ নন, ডাইনি! প্রকারান্তরে বলা- মেয়েমানুষ এমন গর্হিত কাজ করে না! এবং সেই ওম দেখেই স্বরার যৌন উত্তেজনা প্রশমিত হচ্ছে, শয্যায় লুটিয়ে পড়ছে তাঁর ক্লান্ত দেহ!

ভিডিওটা দেখুন ভালো করে! আপনার কী মনে হয়?

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here