ওয়েবডেস্ক: নিজেই কিছু দিন আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখে জানিয়েছিলেন ইরফান- স্বাস্থ্যের অবনতির একটা ধাপে, লন্ডনে চিকিৎসা চলাকালীন তিনি যখন ভর্তি আছেন হাসপাতালে এবং প্রচণ্ড শারীরিক যন্ত্রণা আচ্ছন্ন করে রেখেছে তাঁর ২৪ ঘণ্টা, সে সময়ে তাঁর মনে হত- কিছুই যেন ঠিক নেই!

irrfan khan

কিন্তু কথায় আছে, সব দরজা একে একে বন্ধ হয়ে গেলেও একটা জানলা ঠিকই খুলে যায়! এবং তা দিয়ে আশীর্বাদের মতো এসে পড়ে অপার্থিব ঐশ্বরিক করুণা!

shah rukh khan

ইরফান খানের জীবনে যে সেই বন্ধুত্ব এসেছে শাহরুখ খানের সূত্রে, সেই কথাটা প্রকাশ পেল এত দিনে! জানা গেল, অসুস্থতার সময়ে লন্ডনে কিছুটা হলেও ইরফান এবং তাঁর পরিবার শাহরুখের সক্রিয় সহযোগিতায় কী ভাবে কাটাতে পেরেছিলেন উপদ্রবহীন জীবন!

irrfan khan

বলিউডের এই দুই খান যে পরস্পরের বেশ ভালো বন্ধু, সেটা তেমন অজানা কোনো ব্যাপার নয়। অজানা হল, চিকিৎসার জন্য ইরফান যখন দেশ ছেড়ে রওনা হবেন লন্ডনে, তখন তাঁর স্ত্রী সুতপার কাছ থেকে একটা ফোন পান শাহরুখ খান। সুতপা জানান, ইরফান দেশ ছেড়ে যাওয়ার আগে একবার প্রিয় বন্ধুর সঙ্গে দেখা করতে চেয়েছেন।

shah rukh khan

সেই খবর পেয়েই শাহরুখ তড়িঘড়ি করে ছুটে যান ইরফানের বাড়িতে। একসঙ্গে নৈশভোজ করেন তাঁরা। এবং বিদায় নেওয়ার আগে শাহরুখ খান-দম্পতির হাতের মুঠোয় গুঁজে দেন নিজের লন্ডনের বাড়ির চাবি। ওই বাড়িতেই সবাইকে উঠতে একরকম বাধ্য করেন তিনি!

shah rukh khan

কেন না, প্রতি মুহূর্তে খ্যাতির বিড়ম্বনা সামলাতে থাকা শাহরুখ ভালোই জানেন, কতটা কৌতূহলের মুখে এই সময়ে পড়তে হবে ইরফান এবং তাঁর পরিবারকে। তাই কেউ যাতে তাঁদের নাগাল না পায়, সে জন্যেই এই বন্দোবস্ত করে দেন তিনি।

shah rukh khan and irrfan khan

সব ঠিক না থাকার মুহূর্তেও এই যে বন্ধুত্ব এবং সহযোগিতার জায়গাটা ঠিক ছিল, তা কি বড়ো কম কথা?

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here