ওয়েবডেস্ক: টলিউডের নিন্দুকরা বলেন- ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তর সংসারের নন্দনকানন না কি বরাবরই ছিল ঝড়ের মুখে! শোনা যায়, প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় নামের এক ঘূর্ণিঝড় না কি এই বিয়ের আগে গিয়ে বিস্তর অশান্তি বাধিয়ে এসেছিলেন নায়িকার বাড়িতে। তার পর বিয়ে হল ঠিকই, কিন্তু এক সঙ্গে আর কোথায় থাকেন ঋতুপর্ণা আর স্বামী সঞ্জয়? ফলে, নতুন করে ঝড়ের মুখে সংসারের পড়ার কথা নয়! বড়ো জোর বিবাহবিচ্ছেদটা সামনে আসতে পারে, এই যা! আর স্বামী কেমন অধিকারপ্রবণ, সে তো কিছু দিন আগেই স্বীকার করেছেন নায়িকা এক সাক্ষাৎকারে। চাইলে পড়ে নিতে পারেন তা নীচের লিঙ্ক থেকে!

আরও পড়ুন: স্বামীর ভয়ে প্রসেনজিৎকে ডেট করতে পারেন না, জন্মদিনের জবানবন্দি ঋতুপর্ণার

যাই হোক, নায়িকার সাম্প্রতিক সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট কিন্তু ভাবিয়ে তুলেছে বাংলা ছবি কারখানাকে। সেখানে নিজের একটা হাসিমুখের ছবি দিয়ে হলিউডের সর্বকালের সেরা নায়িকা অড্রে হেপবার্নের এক উক্তি তুলে দিয়েছেন ঋতুপর্ণা! লিখেছেন, সুন্দর চোখের জন্য অন্যের ভালোটা দেখা অভ্যাস করা দরকার, সুন্দর ঠোঁটের জন্য জরুরি সহৃদয় কথা বলা অভ্যাস করা! আর অতিরিক্ত ভার বহন করার সময় মনে রাখা প্রয়োজন- এই দুনিয়ায় কেউ একা নয়!

 

View this post on Instagram

 

Share your smile with the world. It’s symbol of friendship & peace.

A post shared by Rituparna Sengupta (@rituparnaspeaks) on

খুবই ভালো উক্তি, সন্দেহ নেই! কিন্তু সবাই জানেন, ঋতুপর্ণা আর যাই হোন না কেন, একা কোনো দিনই নন! তা হলে কি এই উক্তি তাঁর কটাক্ষ? বিশেষ কেউ কি তাঁকে সন্দেহের চোখে দেখেন? বিশেষ কারও ঠোঁট কি সন্দেহের বিষ উগরে দেয় তাঁর দিকে? সেই ব্যক্তির সাহচর্য কি আপাতত ভারবহনের মতো নায়িকার জীবনে? কিন্তু সেটা বইতে পারছেন, কেন না অন্য বিশেষ কারও সঙ্গ ঋদ্ধ করে তাঁকে? আপনার কী মনে হয়?

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here