ওয়েবডেস্ক: ‘মণিকর্ণিকা’-র শুটিংয়ের ভার কঙ্গনা রানাউতের হাতে ছেড়ে দিয়ে পরিচালক কৃষ আপাতত মন দিয়েছেন পরের ছবি এনটিআর-এর বায়োপিকে। সেখানে যিনি এনটিআর-কে প্রথম ছবিতে অভিনয়ের সুযোগ দিয়েছিলেন, সেই পরিচালক এল ভি প্রসাদের চরিত্রে অভিনয় করছেন যিশু ইউ সেনগুপ্ত। কিন্তু নির্বাক ভাবে! ওরি দেবুরা! হায় ভগবান! এমন সিদ্ধান্ত কেন নিলেন পরিচালক?

আরও পড়ুন: বলিউড আর দক্ষিণী ছবিতেই শুধু মন, বাংলা ছবি আর করবেন না যিশু?

সত্যি বলতে কী, কৃষের এটা ছাড়া আর কিছু করার ছিল না! খবর এসেছে, ছবির তেলুগু সংলাপ উচ্চারণ করা না কি কিছুতেই সম্ভব হয়ে উঠছে না যিশুর বাঙালি জিভে। তাই কী আর করা! স্রেফ শট দেওয়ার সময়ে কোনো মতে ঠোঁট নাড়ছেন তিনি। বাকিটা যথা সময়ে জুতসই কাউকে দিয়ে ডাব করিয়ে নেওয়া হবে বলেই জানা যাচ্ছে।

কিন্তু যিশুর মতো পরিশ্রমী অভিনেতা, তিনি সংলাপ উচ্চারণের জন্য একটুও চেষ্টা করছেন না, এটা কি বিশ্বাসযোগ্য ব্যাপার? খবর বলছে, সাধ থাকলেও এ ব্যাপারে যিশুর না কি সাধ্য নেই। মহেশ মঞ্জরেকরের ‘দেবীদাস ঠাকুর’, অপর্ণা সেনের ‘ঘরে বাইরে’, সৌমিক সেনের ‘মহালয়া‘- কত কত ছবির কাজ লাইন দিয়ে অপেক্ষা করছে না! অতএব, আর কী, উচ্চারণ ছেড়ে অভিনয়েই সর্ব সত্তা ঢেলেছেন নায়ক!

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন