ওয়েবডেস্ক: তা বলতে নেই, টলিপাড়ায় এ বছরটা সকলে যিশু ইউ সেনগুপ্তরই বলছেন! ‘ঘরে অ্যান্ড বাইরে’, ‘উমা’, ‘সোনার পাহাড়’ দিয়ে একে একে সারা বছর বক্স অফিস কাঁপিয়ে আপাতত নায়ক এসে ঠেকেছেন ‘এক যে ছিল রাজা’-য়। কথা হল, এ সবের মাঝেই তিনি ভারতের নানা জায়গায় ঘোরাঘুরি করে শুটিং সেরেছেন ‘মণিকর্ণিকা: দ্য ক্যুইন অব ঝাঁসি’-র এবং এখনও শুটিং চালিয়ে যাচ্ছেন এনটিআর-এর দক্ষিণী বায়োপিকের। ভাবতেই আশ্চর্য লাগে, এত সময় কী ভাবে বের করছেন নায়ক?

এই জায়গায় এসে একটা প্রশ্ন উঠতেই পারে! তা হলে কি তিনি আপাতত ওয়ান টেক অ্যাক্টর হয়ে উঠেছেন? মানে, প্রথম টেকেই তিনি শট উতরে দিচ্ছেন, তাতে শুটিংও হয়ে যাচ্ছে খুব তাড়াতাড়ি এবং একটার পর একটা ছবিতে সময় দিতেও অসুবিধা হচ্ছে না তাঁর? দেখা গেল, অন্তত সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের ছবির কাজ করার ক্ষেত্রে তেমন দাবিই করছেন যিশু!

“সৃজিতের সঙ্গে আমার আজকাল খুব সুন্দর একটা বোঝাপড়া হয়ে গিয়েছে। এখন আর ওকে আমায় বিশদে কিছু বোঝাতে হয় না। মনে আছে, প্রথম যখন ওর সঙ্গে কাজ করি, তখন অনেকটা সময় নিয়ে আমায় একেকটা দৃশ্য বোঝাত। আজকাল স্রেফ একটা লাইন বলে, তাতেই আমি বুঝে যাই ঠিক কী চাইছে। এটা ঋতুপর্ণ ঘোষের সঙ্গেও হতো। ওঁর সঙ্গে প্রথম ছবি দ্য লাস্ট লিয়ার, শেষ চিত্রাঙ্গদা। শেষের দিকে উনি কেবল কিউ দিতেন, আর কিছুর দরকার হতো না”, বলছেন যিশু! তা, এতই যখন বোঝাপড়া, তখন সৃজিতের ‘শাহজাহান রিজেন্সি’ ছবিটা ছাড়লেন কেন? এ বারে কি সৃজিত কী চাইছেন, বুঝতে পারেননি? না কি এ বার বোঝাপড়া ভেঙেছে? আপনার কী মনে হয়?

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here