নয়াদিল্লি : নিজের নির্যাতিত হওয়ার কথা কোনো দিনই আড়াল করেননি অভিনেতা কঙ্গনা রনওয়াত। তবে এত দিন সেই ব্যক্তির নাম বলেননি। সম্প্রতি একটা সাক্ষাৎকারে জানালেন সেই ব্যক্তি হলেন বাবার বয়সী আদিত্য পঞ্চোলি। কুইনের অভিনেতা বলেন, তখন তিনি নাবালক। বয়স মাত্র ১৭। আদিত্যর মেয়ের মতো। তাও তাঁকে এই পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হয়েছিল। সেই সময় তিনি সদ্য এই জগতে পা দিয়েছেন। কিছুই ভালো বোঝেন না। বাড়িতেও সবটা খুলে বলতে পারছিলেন না। ভয় ছিল, যদি তাঁকে এখান থেকে সরিয়ে নিতে চান অভিভাবকরা।

কী করবেন বুঝতে না পেরে দেখা করেছিলেন আদিত্যের স্ত্রী জারিনা ওয়াহাবের সঙ্গে। জারিনাকে তিনি সবটা জানিয়ে ছিলেন। বলেছিলেন, “আমাকে বাঁচান। আমি আপনার মেয়ের থেকেও এক বছরের ছোটো। আমি নাবালক। আমি অভিভাবককে এই সব কথা বলতে পারব না”।

তিনি বলেন, কিন্তু জারিনাকে বলে কোনো লাভ হয়নি। এটা যেন জারিনার জীবনের সব চেয়ে বড়ো আঘাত ছিল। তিনি বলেছিলেন, আদিত্য কখনই বাড়ি আসে না। এটাই তাঁর শান্তি।

বলেন, “এর পর চিন্তা করতে থাকি কে আমাকে সাহায্য করতে পারবে”। ভয় ছিল পুলিশে গেলে তা বাবা মা জানবেন। তাও শেষে পুলিশের কাছেই অভিযোগ জানিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু পুলিশ আদিত্যকে শুধু সাবধান করে আর কাঙ্গনার কাছে ঘেঁষতে মানা করে ছেড়ে দেয়।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন