করন জোহরের প্রেমে পড়েছিলেন ফারহা খান, ভূতের ভয়ের অজুহাতে তাঁর ঘরে ঘুমানোর চেষ্টাও করেছিলেন

0

ওয়েবডেস্ক: বলিউডের জনপ্রিয় পরিচালক- চলচ্চিত্র প্রযোজক করন জোহর একবার প্রকাশ করেছিলেন যে পরিচালক সিরিশ কুন্দারের সঙ্গে বিয়ে হওয়ার আগে ফারহা খান তাঁর প্রেমে পড়েছিলেন। এমনকী একবার তিনি ভূতের ভয়ের অজুহাতে তাঁর ঘরে ঘুমানোর চেষ্টা করেছিলেন। সকলের কাছেই পরিচিত একটি তথ্য যে, করণ জোহর এবং ফারহা খানের মধ্যে দীর্ঘদিনের ঘনিষ্ঠ বন্ধুত্ব। বহুদিন ধরেই তাঁদের প্রায়শই এক সঙ্গে দেখা যায়।

তবে যেটা অনেকেই জানেন না, সেটা হল ফারহা করনের প্রেমে পড়েছিলেন। কিন্তু করন তাঁর প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছিলেন। করন নিজেও এটি স্বীকার করেছিলেন, যখন দু’জন সাজিদ খান এবং রীতেশ দেশমুখের শো ‘ইয়ারোন কি বরাতে’ হাজির হয়েছিলেন। ওই অনুষ্ঠানে সেলিব্রিটিরা বিভিন্ন চ্যালেঞ্জের মধ্য দিয়ে তাঁদের বাস্তব জীবনের বন্ধুত্বের প্রমাণ দেন।

দু’জনের সঙ্গে কথা বলার সময় রীতেশ তাঁদের জিজ্ঞাসা করেছিলেন, তাঁরা কখনও অনুভব করেছে যে তাঁরা একে অপরের প্রেমে পড়ছেন। করণ জোহর সেই প্রশ্নের উত্তরেই বলেন, ফারহা যখন তাঁর প্রেমে পড়েছিলেন, তখনই এই ঘটনাটি ঘটে। তিনি বলেছিলেন, “এমন প্রশ্নের উত্তর দেওয়া আমার কাছে অস্বস্তিকর, কারণ ফারহা একজন বিবাহিত মহিলা। তিনি আমার সঙ্গে প্রেম করার চেষ্টা একবার করেছিলেন। এটি একটা সত্য ঘটনা”।

করন বলেছিলেন, “আমরা কুছ কুছ হোতা হ্যায়-এর গানের শুটিংয়ে স্কটল্যান্ডে ছিলাম। আমি শর্টস এবং টি-শার্টে নিরীহ ভাবে আমার ঘরে ঘুমাচ্ছিলাম। মধ্যরাতে সে আমার ঘরে ঢুকে ভূতের অজুহাত দেখিয়ে আমার ঘরে ঘুমনোর কথা বলে। (সাজিদ-রীতেশের কাছে গিয়ে) আমি কি ভূতের সঙ্গে ছড়া-গান করি? তার পরে সে (ফারহা) বলেছিল সে তার নিজের ঘরেই ঘুমোতে যাচ্ছে। পর দিন বলেছিল একটি ভূত তার উপরে ভর করেছিল। আমি বলেছিলাম, তোমার ইচ্ছা পূরণ হয়েছে “।

পরে,রীতেশ দু’জনকে জিজ্ঞাসা করেছিলেন, তাঁরা কখনও একে অপরকে ভুল পরামর্শ দিয়েছেন কিনা। এমন প্রশ্নের জবাবে ফারহা বলেছিলেন, “আমি একবার করনকে জিজ্ঞাসা করেছি যে সে আমাকে বিয়ে করবে কিনা। আমাকে বিয়ে কর”। করন বলেছিল, “তবে এখানে প্রযুক্তিগত সমস্যা ছিল। প্রযুক্তিগত সীমা লঙ্ঘন হয়েছিল।” সবাই তাঁর কথায় হাসিতে ফেটে পড়ে। পরে তিনি যোগ করেছিলেন, “এ জন্যই আমি তাকে বিয়ের জন্য সেরা পরামর্শ দিয়েছি”।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.