ওয়েবডেস্ক: প্রশ্ন উঠছে এখন বেগমজানের শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে!

kareena kapoor khan

আসলে সম্প্রতি ‘বীরে দি ওয়েডিং’ ছবির প্রচারে এসে একটা হাস্যকর কথা বলতে শোনা গিয়েছে করিনা কাপুর খানকে। তিনি দাবি করেছেন- “আমি নারীবাদী নই! কিন্তু সব সময়ে নারী আর পুরুষের সমান অধিকারের পক্ষে সওয়াল করে থাকি!”

আর এই জায়গা থেকেই টুইটারে তীব্র হাসাহাসি শুরু হয়ে গিয়েছে তাঁকে নিয়ে। কেন না, আভিধানিক সংজ্ঞা অনুযায়ী নারীবাদী তো তাঁকেই বলে যিনি নারী আর পুরুষ- উভয় শ্রেণীকেই দেখেন সমান চোখে। ফলে, নায়িকার বিদ্যেবুদ্ধির দৌড় নিয়ে মশকরা করছেন টুইটারেতিরা। তাঁরা এটা বলতেও ছাড়ছেন না, করিনা অভিনয় করেন ঠিকই, তবে তিনি অভিনেত্রী নন! দেখতেই তো পাচ্ছেন, টুইটের পর টুইট তাঁকে কী ভাবে পরিণত করেছে হাসির খোরাকে!

তবে এ প্রসঙ্গ বাদ দিলেও যা দেখা যাচ্ছে, খুব একটা শান্তিতে নেই। কেন না, স্বামী সইফ আলি খানের সঙ্গে তাঁর এখন আকছার মনোমালিন্য হচ্ছে। তাও আবার বাড়ির চার দেওয়ালের মধ্যে নয়। সবার সামনেই, ভক্ত-পাপারাজ্জি কারও তোয়াক্কা করছেন না সইফ!

saif kareena taimur

খুব সম্ভবত করিনা বুঝতে পেরেছেন- এই মনোমালিন্য চট করে থামবে না! কেন না, ঝগড়ার কারণ তৈমুর! করিনা তাই নিজেই কবুল করেছেন সংবাদমাধ্যমের কাছে, কিছুটা অসহায় হয়েই, সইফ ছেলেকে ক্যামেরার সামনে নিয়ে আসা মোটেই পছন্দ করছেন না! যে কারণে সোনম কাপুর আর আনন্দ আহুজার বিয়েতে তিনি গাড়ি থেকে নেমে করিনার হাত বেশ বাজে ভাবেই ছাড়িয়ে তৈমুরকে নিয়ে চলে গিয়েছিলেন ভিতরে। আর এ বার ঝগড়া বাধল শুটিং স্পটে।

kareena kapoor and taimur

খবর বলছে, সইফ তৈমুরকে নিয়ে করিনার ‘বীরে দি ওয়েডিং’ ছবির প্রচারে যাওয়াটা মোটেই ভালো ভাবে নেননি। তাও চুপ করে ছিলেন। ভেবেছিলেন, স্টুডিওয় গিয়ে একটা সারপ্রাইজ দেবেন স্ত্রীকে কাজের মাঝে। কিন্তু সেখানেও যখন তৈমুরকে পাপারাজ্জিদের সামনে নিয়ে এলেন করিনা, আর মাথা ঠান্ডা রাখতে পারেননি সইফ!

kareena kapoor khan and saif ali khan

কতটা যে খাপ্পা হয়েছেন নবাব, ছবিই তা বলে দিচ্ছে!

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here