ওয়েবডেস্ক: মৃত্যু বয়স মেনে আসে না! মরণশীল পৃথিবীতে এই সত্য কারও অজানা নয়!

তবু, ৫৪ বছর বয়সে শ্রীদেবীর অকস্মাৎ প্রয়াণ নিয়ে প্রশ্নচিহ্ন উঠছে। কেন না, তিনি সাধারণ কোনো মানুষের পর্যায়ে পড়েন না। নিরন্তর চিকিৎসার মধ্যে থাকা, নিজেকে ঠিক রাখতে নিয়মিত যোগাভ্যাস, সব চেয়ে বড়ো কথা পুষ্টিকর খাবার- কোনোটারই অভাব ছিল না তাঁর জীবনে।

sridevi

তা হলে এ হেন পরিণত কেন?

সে উত্তরে আসার আগে সদ্য প্রয়াত নায়িকার ছোটো দেওর সঞ্জয় কাপুরের একটি উক্তিতে চোখ না রাখলেই নয়! “সত্যি বলতে কী, আমরা স্তম্ভিত! ওঁর তো কোনো কালেই হৃদরোগের কোনো সমস্যা ছিল না”, অকপটে জানিয়েছেন সঞ্জয়।

sridevi

আর সঞ্জয়ের এই মন্তব্যের পরেই নায়িকার মৃত্যু যে স্বাভাবিক নয়- সেই প্রশ্নে যেন সিলমোহর পড়ল! কেন না, চিকিৎসকরাও সহমত যে তাঁর মৃত্যু ত্বরাণ্বিত হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক চিকিৎসক জানিয়েছেন যে কোনো রকম অস্ত্রোপচার, তা সে যতই ছোটো হোক না কেন, তার পরে ২ ঘণ্টার বেশি বিমানযাত্রা শরীরের পক্ষে কালান্তক হয়ে উঠতে পারে! অস্বীকার করার উপায় নেই- কিছু দিন আগেই শ্রীদেবী লিপ সার্জারি করিয়েছিলেন। এ-ও অস্বীকার করার উপায় নেই- হালফিলে বিমানযাত্রা তাঁর বেড়েছিল বই কমেনি!

sridevi

বড়ো মেয়ে জাহ্নবী যখনই শুটিংয়ের জন্য দেশের এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় গিয়েছেন, আকছার তাঁকে সারপ্রাইজ দিতে শ্রীদেবীও গিয়েছেন সেখানে। এ সবের সঙ্গে যোগ হয়েছিল ভাগ্নে মোহিত মারওয়ার বিয়েতে দুবাই উড়ে যাওয়া! লম্বা বিমানসফর, বিয়েবাড়ির মজলিস, নাচ-গান, খাওয়া-দাওয়ার অনিয়ম- সব কিছুই একের পর এক ধাক্কা দিয়ে গিয়েছিল তাঁর শরীরযন্ত্রটিকে।

এবং, নায়িকার এই করুণ পরিণতির জন্য দায়ী করাই যায় বিনোদুনিয়াকেও! কেন না, সারা জীবন এই দুনিয়া তাঁর উপরে নিজেকে তন্বী রাখার একটা অসম্ভব মানসিক চাপ ফেলেছে। সৌন্দর্য হবে ছিপছিপে- গ্ল্যামার ওয়ার্ল্ডের এই নিয়মের খেসারত দিয়েছেন অনেক মডেলই! তাঁদের মতো দৌড়ে টিঁকে থাকার মাসুল গুনতে হল শ্রীদেবীকেও।

sridevi

নায়িকার মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়তেই ফেসবুকের একটি পোস্টও হোয়াটসঅ্যাপে ভাইরাল হয়েছে। যিনি তা লিখেছেন, তাঁর দাবি- সৌন্দর্য ধরে রাখতে, বুড়িয়ে না যাওয়ার জন্য নায়িকা না কি দক্ষিণ ক্যালিফোর্নিয়ায় একের পর এক কসমেটিক সার্জারি করিয়েছেন! কিছু দিন আগে করানো লিপ সার্জারিকে বক্তব্যের প্রমাণ হিসাবে পেশ করা যায়। যার ধকল শেষ পর্যন্ত শরীর আর নিতে পারল না!

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here