30 C
Kolkata
Friday, June 18, 2021

‘৩৬ চৌরঙ্গি লেন’-এর সুরস্রষ্টা বনরাজ ভাটিয়া প্রয়াত

আরও পড়ুন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত কিংবদন্তি সংগীত পরিচালক ও সুর সংযোজক বনরাজ ভাটিয়া (Vanraj Bhatia) শুক্রবার মুম্বইয়ে প্রয়াত হলেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৯৩ বছর। মূলত বার্ধক্যজনিত কারণেই তাঁর মৃত্যু হয়। গত দু’ মাস ধরে তিনি কার্যত শয্যাশায়ী ছিলেন।

‘৩৬ চৌরঙ্গি লেন’, ‘অঙ্কুর’, ‘নিশান্ত’, ‘মন্থন’ প্রভৃতি চলচ্চিত্রের সুরস্রষ্টা বনরাজ ভাটিয়া ইদানীং বেশ অর্থকষ্টে ভুগছিলেন। মুম্বইয়ে নেপিয়ান সি রোডে নিজের অ্যাপার্টমেন্টে পরিচারকের সঙ্গে থাকতেন তিনি।

Loading videos...
- Advertisement -

বনরাজের শারীরিক অসুস্থতা ও আর্থিক অসুবিধার খবর পেয়ে তাঁর সাহায্যে এগিয়ে এসেছিল প্রবীণ চিত্রনাট্যকার জাভেদ আখতারের ইন্ডিয়ান পারফরমিং রাইট সোসাইটি (আইপিআরএস)। কোভিড ১৯ অতিমারির কারণে তিনি ডাক্তারও দেখাচ্ছিলেন না।

তাঁর মৃত্যুতে চলচ্চিত্র ও সংগীত জগতে শোকের ছায়া নেমে আসে। চলচ্চিত-নির্মাতা হনসল মেহতা, লেখক বরুণ গ্রোভার, অভিনেত্রী ও বিজেপি নেত্রী স্মৃতি ইরানি, সংগীত পরিচালক বিশাল ভরদ্বাজ, সংগীতশিল্পী রেখা ভরদ্বাজ প্রমুখ তাঁর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন।  

বনরাজের সংগীতজীবন

গত শতকের ৫০-এর দশক থেকে সুর সংযোজনার কাজ শুরু করেন বনরাজ ভাটিয়া। তবে ভারতের নিউ ওয়েভ সিনেমায় সুর সৃষ্টি করেই খ্যাতি লাভ করেন তিনি। ভারতে সুরজগতে পশ্চিমি উচ্চাঙ্গ সংগীতের সুর সংযোজনার কৃতিত্বও বনরাজের।

বনরাজ ভাটিয়া ৭০-এরও বেশি ফিল্মে হয় সংগীত পরিচালনা করেছেন আর না ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক করেছেন। ‘৩৬ চৌরঙ্গি লেন’, ‘অঙ্কুর’, ‘নিশান্ত’, ‘মন্থন’ ছাড়া আর যে সব ফিল্মে তিনি সুর সংযোজনা করেছেন তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য ‘জুনুন’, ‘কলইয়ুগ’, ‘জানে ভি দো ইয়ারো’, ‘মান্ডি’, ‘খামোশ’, ‘চার অধ্যায়’ (হিন্দি) প্রভৃতি।

শুধু বলিউডের চলচ্চিত্রেই নয়, দূরদর্শনের জনপ্রিয় সিরিয়ালগুলিতেও সংগীত পরিচালনা করেছেন বনরাজ। এদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য শ্যাম বেনেগাল নির্মিত ৫৩ পর্বের ‘ভারত এক খোঁজ’, ‘খানদান’, ‘ওয়াগলে কি দুনিয়া’ ইত্যাদি।

এ ছাড়াও সংগীতের অন্যান্য ক্ষেত্রেও অবাধ বিচরণ ছিল বনরাজ ভাটিয়ার। তথ্যচিত্র, থিয়েটার, অপেরা ইত্যাদিতে সুর সৃষ্টি করেছিলেন তিনি।       

টিভি ফিল্ম ‘তমস’-এ (১৯৮৮) সুর দিয়ে শ্রেষ্ঠ সংগীত পরিচালক হিসাবে জাতীয় পুরস্কার পেয়েছিলেন। পরের বছরই পান সংগীত নাটক অকাদেমি পুরস্কার এবং ২০১২-তে পান পদ্মশ্রী। এ ছাড়াও তিনি বহু পুরস্কার পেয়েছেন। তার মধ্যে ‘মন্থন’ (১৯৭৬) এবং ‘ভূমিকা’ (১৯৭৭) ফিল্মে সংগীত পরিচালনার জন্য তিনি পর পর দু’ বছর বিএফজেএ (বেঙ্গল ফিল্ম জার্নালিস্টস অ্যাসোসিয়েশন) পুরস্কার পান।

- Advertisement -

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

- Advertisement -

আপডেট

ইমিউনিটি বাড়াতে বাড়িতেই করুন যোগব্যায়াম

নিয়মিত ব্যায়াম করলে শরীরে শ্বেতকণিকার সংখ্যা বাড়ে অর্থাৎ জীবাণুর বিরুদ্ধে লড়াই করার ক্ষমতা বাড়ে। ফলে চট করে সংক্রমণ হয় না।

পড়তে পারেন