Connect with us

বিনোদন

মায়ের জন্মদিনটা এ ভাবেই পালন করলেন মাধুরী দীক্ষিত, দেখুন আপনার মুখেও হাসি খেলতে পারে

ওয়েবডেস্ক: লকডাউনের মধ্যে পরিবারের আর পাঁচজনের সঙ্গে বাড়িতেই কাটাচ্ছেন মাধুরী দীক্ষিত নেনে (Madhuri Dixit-Nene)। স্বাভাবিক ভাবেই মায়ের জন্মদিনও উদ্‌যাপন করলেন বাড়িতেই।

সোশ্যাল মিডিয়ায় মাধুরীর শেয়ার করা ভিডিয়োয় দেখা যাচ্ছে, তিনি কী ভাবে মায়ের জন্মদিনের অনুষ্ঠানটা পালন করেছেন।

ওই ভিডিয়োয় দেখা যাচ্ছে, নিজে গান গাইছেন, সঙ্গে গিটার বাজাচ্ছেন তাঁর স্বামী। আবার বাড়ির ছোটোরা এবং অন্যান্য কর্মীরাও তাদের ভালোবাসার ‘আই’-এর জন্মদিনে অনাবিল আনন্দে মেতে উঠেছে।

ভিডিয়োটি পোস্ট করে মাধুরী একটি দীর্ঘাকার কাব্যিক মন্তব্যও লিখেছেন। “সারা বিশ্বের সব থেকে সুন্দরী মহিলা, আমার জীবনের ঝড়ো সাগরে আমার নোঙর এবং আমার পালে বাতাস … আমার প্রতিটা সাফল্যের পিছনে তুমিই। আজকের এই বিশেষ দিনে তোমার জন্য বিশেষ কিছু…”, লিখেছেন মাধুরী।

আবার এই লকডাউনের মধ্যে তাঁর সঙ্গে থেকে এই বিশেষ দিনটিকে উদ্‌যাপনে যাঁরা সহযোগিতা করেছেন, তাঁদের উদ্দেশে ধন্যবাদ জানাতেও ভোলেননি নায়িকা।

কয়েক সপ্তাহ আগেই করোনা যোদ্ধাদের কুর্নিশ জানিয়ে গান গেয়েছিলেন। তাঁর অভিনয় এবং নাচের দক্ষতা দিয়ে নতুন করে বলার নেই। এমনকী গানের প্রতি তাঁর অনুরাগের কথাও অনেকে জানেন। এখন কণ্ঠের জাদুতে মুগ্ধ গোটা দেশ।

সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই গানের ঝলক শেয়ার করতেই তাঁর প্রশংসায় পঞ্চমুখ প্রত্যেকেই। লকডাউন শুরুর পরই অনলাইন নাচের ক্লাস চালু করেছিলেন নায়িকা। ডান্স উইথ মাধুরী ডট কম-এ হয়েছিল নাচের প্রশিক্ষণ। নিজের অনুরাগী এবং দর্শকদের সঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়ায় নিয়মিত যোগাযোগও রাখছেন নায়িকা।

বিনোদন

হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন সরোজ খান

খবরঅনলাইন ডেস্ক: বেশ কিছু দিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন তিনি। বৃহস্পতিবার রাতে সবাইকে ছেড়ে না-ফেরার দেশে পাড়ি জমালেন বিখ্যাত কোরিওগ্রাফার সরোজ খান (Saroj Khan)। ২০২০-তে বলিউডে আরও এক নক্ষত্রপতন হল।

বুধবার রাত থেকেই তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়েছিল। বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে মুম্বইয়ের হাসপাতালে হৃদরোগে আক্রান্ত হন তিনি। সেখানেই সব শেষ। মায়ের মৃত্যুর খবর সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন তাঁর মেয়ে। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭১ বছর।

২০ জুন শ্বাসকষ্টের সমস্যা নিয়ে বান্দ্রার গুরু নানক হাসপাতালে ভরতি হয়েছিলেন সরোজ। অন্যান্য লক্ষণ না থাকলেও শ্বাসকষ্টের সমস্যা থাকায় তাঁর কোভিড টেস্ট করা হয়। সেই টেস্টের রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছিল।

২৪ জুন পরিবারের তরফে জানানো হয়, পর্যবেক্ষণে থাকলেও তাঁর অবস্থার উন্নতি হয়ছে। পরিস্থিতির অবনতি না হলে আগামী দু’-তিন মধ্যেই ছেড়ে দেওয়া হবে তাঁকে। কিন্তু বান্দ্রার হাসপাতাল থেকে আর বাড়ি ফেরা হল না সরোজের। হৃদ্‌যন্ত্র বিকল হয়ে বৃহস্পতিবার গভীর রাতে পৃথিবী থেকে বিদায় নিলেন তিনি।

প্রায় চার দশক ধরে বলিউডের সঙ্গে জড়িত ছিলেন তিনি। দু’ হাজারেরও বেশি গানে কোরিয়োগ্রাফি করেছেন তিনি। তিন বার ন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ডও জিতেছিলেন তিনি।

২০২০টা বলিউডের কাছে বার বার শোকের খবর নিয়ে আসছে। ইরফান খান, ঋষি কপুর, ওয়াজিদ খান, সুশান্ত সিংহ রাজপুতের পর এ বার চলে গেলেন সরোজও।

Continue Reading

বিনোদন

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু-রহস্যে এ বার মুম্বই পুলিশের নজরে সঞ্জয়লীলা বনশালী!

ওয়েবডেস্ক: বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের (Sushant Singh Rajput) মৃত্যুর ঘটনায় এ বার মুম্বই পুলিশের নজরে পড়েছেন স্বনামধন্য চলচ্চিত্র পরিচালক সঞ্জয়লীলা বনশালী (Sanjay Leela Bhansali)। সূত্রের খবর, তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সমন পাঠাচ্ছে পুলিশ।

একটি সূত্র দাবি করেছে, খুব শীঘ্রই বনশালী এবং যশরাজ ফিল্মসের (Yashraj Films) কাস্টিং ডিরেক্টর শানু শর্মাকে নোটিশ পাঠিয়ে বান্দ্রা থানায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। এর আগে শর্মাকে পুলিশ তলব করলেও বনশালী এই প্রথমবার সুশান্তের মৃত্যু-রহস্যে পুলিশের মুখোমুখি হতে চলেছেন।

সূত্রটি আরও জানিয়েছে, এই ঘটনার সঙ্গে কোনো প্রত্যক্ষ যোগাযোগ না থাকলেও কঙ্গনা রানৌত (Kangana Ranaut) এবং শেখর কাপুরকে (Shekhar Kapur) জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ থানায় ডাকতে পারে।

কেন বনশালীকে ডাক?

সূত্রের খবর অনুসারে, বনশালীর দু’টি ছবি – ‘গোলিয়োঁ কি রাসলীলা রাম-লীলা’ এবং ‘বাজিরাও মস্তানি’-তে প্রথমে সুশান্তকে অফার করা হয়েছিল।

ছবি দু’টি বক্স অফিসে ব্লক বাস্টারের তকমা আদায় করে নেয়।কিন্তু ওই দু’টি ছবিতেই সুশান্তকে অভিনয় করতে দেখা যায়নি। কারণ তিনি সে সময় যশরাজ ফিল্মসের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ ছিলেন।

এমনটা দাবি করা হচ্ছে, ছবি দু’টিতে কাজ করতে না পারার প্রেক্ষিতে যশরাজের সঙ্গে সুশান্তের সম্পর্ক টকে যায়। ফলে অতীতের এই ঘটনাগুলি নিয়ে বনশালীকে প্রশ্ন করা হতে পারে। যশরাজ সুশান্তের উপর কোনো চাপ সৃষ্টি করেছিল কি না, সেটাই সম্ভবত জানতে চায় পুলিশ।

‘গোলিয়োঁ কি রাসলীলা রাম-লীলা; রিলিজ করে ২০১৩ সালে। ওই বছরেই আত্মপ্রকাশ সুশান্তের। এই ছবিতে রণবীর সিং এবং দিপীকা পাড়ুকোনকে দেখা যায়। ২০১৫ সালে রিলিজ হয় ‘বাজিরাও মস্তানি’। ওই ছবিতে রণবীর, দিপীকা ছাড়াও প্রিয়ঙ্কা চোপড়া ছিলেন। দু’টি ছবিরই পরিচালক বনশালী।

তদন্ত যে ভাবে এগোচ্ছে

সুশান্তের মৃত্যু-রহস্যে এখনও পর্যন্ত বয়ান রেকর্ড করা হয়েছে ২৮ জনের। যাঁদের মধ্যে রয়েছেন সুশান্তের বাবা, দুই বোন, ম্যানেজার, রাঁধুনি এবং অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তী, সঞ্জনা সঙ্ঘী-সহ আরও অনেকেই।

জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে শানু শর্মাকেও। তিনি যশরাজের প্রাক্তন আধিকারিক। ২০১২ সালে যশরাজের সঙ্গে সুশান্তের চুক্তির সময় তিনি স্বাক্ষর করেছিলেন। এই সংস্থার ব্যানারে সুশান্ত ‘শুদ্ধ দেশি রোমান্স’ এবং ‘ডিটেকটিভ ব্যোমকেশ বক্সি’ নামে দু’টি ছবিতে অভিনয় করেন।

তবে ময়নাতদন্তের রিপোর্টে জানানো হয়েছে, সুশান্ত আত্মহত্যাই করেছেন। কিন্তু কী কারণে তিনি এতটা মানসিক অবসাদের শিকার হলেন, সেটা বিবেচনা করেই ‘পেশাদারি প্রতিদ্বন্দ্বিতা’র দৃষ্টিকোণ থেকে তদন্ত করছে পুলিশ।

Continue Reading

বিনোদন

মা করোনা নেগেটিভ, হাঁফ ছেড়ে বাঁচলেন আমির খান

ওয়েবডেস্ক: একাধিক কর্মীর কোভিড-১৯ (Covid-19) পজিটিভ হওয়ার খবর গতকাল জানিয়েছিলেন বলিউড অভিনেতা আমির খান (Aamir Khan)। পরিবারের অন্য সদস্যরাও নেগেটিভ হওয়ার পর বাকি ছিল শুধু তাঁর মায়ের রিপোর্ট।

আমির জানিয়েছিলেন, একাধিক কর্মীর করোনাভাইরাস (Coronavirus) আক্রান্ত হওয়ার পর তাঁর পরিবারের অন্য সদস্যদেরও নমুনা পরীক্ষা করানো হয়। প্রত্যেকেরই রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। শুধু অপেক্ষা চলছিল তাঁর মায়ের রিপোর্টটির জন্য। আমির বলেছিলেন, আপনারা প্রার্থনা করুন, যাতে আমার মায়ের রিপোর্টও নেগেটিভ আসে।

বুধবার আমির সোশ্যাল মিডিয়ায় জানান, “সবাইকে এই খবরটা জানাতে পেরে আমি স্বস্তি অনুভব করছি। আমার মায়ের রিপোর্টও নেগেটিভ এসেছে”। একই সঙ্গে সবাইকেও ধন্যবাদও জানিয়েছেন অভিনেতা।

মঙ্গলবার আমির সোশ্যাল মিডিয়ায় জানিয়েছিলেন, “মা ছাড়া আমার পরিবারের প্রত্যেকের রিপোর্টই নেগেটিভ এসেছে। এখন আমি মায়ের রিপোর্টের অপেক্ষায় রয়েছি। প্রার্থনা করুন, তাঁর রিপোর্টও যেন নেগেটিভ আসে”।

একই সঙ্গে জানান, “আমার বেশ কয়েকজন কর্মী করোনা পজিটিভ হয়েছেন। তাঁদের সবাইকে কোয়রান্টিনে পাঠানো হয়েছে তৎক্ষণাৎ। বৃহন্মুম্বই পুরসভা (BMC) কর্তৃপক্ষ দক্ষতার সঙ্গে আক্রান্তদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছেন”। বিএমসি কর্তৃপক্ষের পাশাপাশি কোকিলাবেন হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্স এবং স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রতিও ধন্যবাদ জানান অভিনেতা। তাঁরা যে দক্ষতার সঙ্গে সম্পূর্ণ নমুনা পরীক্ষা প্রক্রিয়া পরিচালনা করেছেন, তার জন্য কৃতজ্ঞতা স্বীকার করেন আমির।

Continue Reading
Advertisement

নজরে