Manohar Parrikar

ওয়েবডেস্ক: সমালোচনা তুঙ্গে। আন্তর্জাতিক ভারতীয় চলচ্চিত্র উৎসবের জুরি এবং অন্যদের মধ্যেও প্রচ্ছন্ন থাকছে না বিরোধিতার সুর। সনল কুমার শশীধরণের ‘এস দুর্গা’ এবং রবি যাদবের ‘ন্যুড’ না দেখানোর প্রতিবাদে জুরি বোর্ডের প্রধান পরিচালক সুজয় ঘোষের পদত্যাগের পর ইস্তফা দিয়েছেন আরও দু’জন। সব মিলিয়ে এ বারের আইএফএফআই ঘিরে রেখেছে জটিল বিতর্ক। সেই সব জল্পনা-কল্পনায় এ বার ইতি টানতে চাইলেন গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী মনোহর পররিকর। স্পষ্ট করে দিলেন, কেন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রকের হস্তক্ষেপে বাদ পড়ল ছবিদু’টি! যদিও মন্ত্রকের অধিকর্তা স্মৃতি ইরানি এখনও এ বিষয়ে নীরব।

“এস দুর্গা ছবির যে প্রিন্ট আমরা পেয়েছি, তা সেন্সর বোর্ড অনুমোদিত নয়। কাটছাঁট করা ছবির বদলে আমাদের কাছে পাঠানো হয়েছে মূল ছবিটিই! অথচ পরিচালক শশীধরণ অন্য চলচ্চিত্র উৎসবে যখন ছবিটি পাঠিয়েছেন, তখন কিন্তু তিনি সেন্সর বোর্ড অনুমোদিত ভার্সনটিই পাঠিয়েছেন। সেই জন্য আমরা ছবিটা না দেখানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি”, স্পষ্ট করে জানিয়েছেন পররিকর। পাশাপাশি, ‘ন্যুড’ ছবিটি না দেখানোর প্রসঙ্গে তাঁর বিবৃতি আরও কাটা-কাটা! “ছবিটা তো পুরোটা পাঠানোই হয়নি! আমরা একটা অসমাপ্ত ভার্সন পেয়েছি। এখন অসমাপ্ত ছবি দেখানোর অনুমতি কী করে দেওয়া যায় বলুন তো?” পালটা প্রশ্ন পররিকরের।

তবে গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী যা-ই বলুন না কেন, জুরি বোর্ডের সদস্যদের পদত্যাগে অব্যাহতি নেই। জুরি বোর্ডের প্রধান সুজয় ঘোষের পদত্যাগের পরে সরে এসেছেন আরও দুই সদস্য। তাঁরা চিত্রনাট্যকার অপূর্ব আসরানি এবং চলচ্চিত্র পরিচালক জিয়ান কোরিয়া। “আমি জুরি প্রধানের সিদ্ধান্তকে পূর্ণ সমর্থন করি। আসলে ভালো ছবির প্রতি সুবিচার করার ব্যাপারে আমাদের একটা দায়িত্ব রয়েছে। কিন্তু এ ক্ষেত্রে আমরা সেই দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হয়েছি। তাই এই উৎসবে আমার মন যোগদান করতে চাইছে না”, জানিয়েছেন আসরানি। জিয়ান নিজে কিছু না বললেও তাঁর পদত্যাগের খবরটা নিশ্চিত করেছেন পরিচালক শশীধরণ। তাঁর ফেসবুক পোস্ট বলছে এতে তিনি আঁধারে আশার আলোই দেখছেন!

যদিও মনোহর পররিকরের বক্তব্য শান্ত করতে পারছে না কাউকেই!

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here