ওয়েবডেস্ক: আজ শুভ জন্মদিন! দেখতে দেখতে এই পৃথিবীর বুকে তো বটেই, বিশেষ করে বলিউডেও অনেকগুলো বছর পার করে ফেললেন মনোজ বাজপেয়ী। প্রথম তিনি বলিউডের রুপোলি পর্দায় দেখা দিয়েছিলেন ১৯৯৪ সালে। তার পর দেখতে দেখতে কেটে গেল পাক্কা ২৪ বছর!

কিন্তু এই দুই যুগ পার করে এসে যা বলছেন নায়ক, তার পরিপ্রেক্ষিতে দেখা যাচ্ছে যে বিস্তর ক্ষোভ জমা হয়ে রয়েছে তাঁর মনে। ছবিতে স্বল্প দৈর্ঘ্যের চরিত্রে অভিনয়ের প্রসঙ্গে যা উজাড় করে দিলেন তিনি।

manoj bajpayee

খেয়াল করে দেখবেন, অনেক নায়ক এবং নায়িকাই এটা দাবি করে থাকেন যে চরিত্র যত স্বল্প দৈর্ঘ্যেরই  হোক না কেন, তা এমন কিছু পার্থক্য তৈরি করে না। তাঁরা এটাও বলে থাকেন, ক্ষমতা থাকলে ছবিতে স্রেফ একবার মুখ দেখিয়েই পাকাপাকি ভাবে জায়গা করে নেওয়া যায় দর্শকের মনে।

কিন্তু বাজপেয়ীর দাবি, সে রকম কিছুই না কি হয় না!

“আমার কাছে যে চরিত্রে অভিনয় করছি, সেটার দৈর্ঘ্য বেশি হওয়াটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যাঁরা বলেন যে স্বল্প দৈর্ঘ্যের চরিত্রে কাজ করেও একটা প্রভাব ফেলা যায়, তাঁরা হাস্যকর কথা বলেন! এ রকম কিছুই হয় না”, দাবি তাঁর!

manoj bajpayee

এর পরেই কেন তিনি এ কথা বলছেন, তা খোলসা করে জানিয়েছেন বাজপেয়ী। “দেখুন, একটা স্বল্প দৈর্ঘ্যের চরিত্রে অভিনয় করে দর্শকের মনে যে প্রভাব ফেলা যায় না, তা নয়! তবে তার রেশ খুব একটা স্থায়ী হয় না! কেন না, শেষ পর্যন্ত ছবির সব কৃতিত্বই চলে যায় কেন্দ্রীয় চরিত্রদের খাতে”, বলছেন তিনি!

হয় তো খুব একটা ভুল বলছেনও না! ক’জন মনে রেখেছি আমরা যে গোবিন্দ নিহালনির ‘দ্রোহকাল’ ছবিতে এমনই এক স্বল্প দৈর্ঘের চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন তিনি?

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here