ওয়াজিদের মৃত্যুর এক দিন পরে মায়ের কোভিড ১৯ ধরা পড়ল

0

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সংগীত পরিচালক ওয়াজিদ খানের (Wajid Khan) মৃত্যুর এক দিন পরে তাঁর মা কোভিড ১৯-এ আক্রান্ত বলে জানা গেল। ওয়াজিদ যে হাসপাতালে ছিলেন, সেই হাসপাতালেই ভরতি করা হয়েছে তাঁকে। এই খবর দিয়েছে সংবাদসংস্থা পিটিআই।

আরও পড়ুন: বলিউডে আবার শোকের ছায়া, ৪২ বছরেই প্রয়াত সংগীত পরিচালক ওয়াজিদ খান

ওয়াজিদের পরিবারের সূত্রে জানা গিয়েছে, তাঁর মা রেজিনা খানের (Razina Khan) করোনাভাইরাস (coronavirus) পরীক্ষা পজিটিভ এসেছে। তাঁকে চেম্বুরের সুরানা হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে। এই হাসপাতালেই চিকিৎসাধীন ছিলেন ওয়াজিদ। ওয়াজিদের মা ভালো আছেন। তবে যত দিন না তাঁর করোনাভাইরাস পরীক্ষা নেগেটিভ আসে, তত দিন তাঁকে হাসপাতালে থাকতে হবে।

কিডনি সংক্রমণে ওয়াজিদ খান গতকাল সোমবার প্রয়াত হন। স্ত্রী, ভাই সাজিদ খান, পরিবারের অন্যান্য সদস্য এবং বলিউড অভিনেতা আদিত্য পাঞ্চোলির উপস্থিতিতে ভারসোভা সমাধিক্ষেত্রে ওয়াজিদকে সমাহিত করা হয়।       

Shyamsundar

ওয়াজিদের প্রতি শ্রদ্ধার্ঘ্যতে টুইটার একেবারে ভরে গিয়েছে। অমিতাভ বচ্চন, অভিষেক বচ্চন, প্রিয়াঙ্কা চোপড়া-সহ চলচ্চিত্র জগতের প্রায় সবাই ওয়াজিদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন। তাঁর দীর্ঘদিনের সহকর্মী সলমান খান তাঁর প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি জানিয়ে বলেছেন, “ওয়াজিদ, মানুষ হিসাবে এবং গুণী হিসাবে তোমাকে সব সময় ভালোবাসব, শ্রদ্ধা করব, স্মরণ করব এবং তোমাকে মিস করব। ভালোবাসা নিও। তোমার সুন্দর আত্মা শান্তিলাভ করুক।”

কিডনির অসুখ ছিল ওয়াজিদের। সংগীত পরিচালক সেলিম মার্চেন্ট পিটিআইকে ওয়াজিদের মৃত্যুর খবর দেন। তিনি বলেন, “তাঁর নানা রকম শারীরিক সমস্যা ছিল। কিডনিরও অসুখ ছিল।   কিছু দিন আগেই তাঁর কিডনি প্রতিস্থাপন করা হয়েছিল। সম্প্রতি জানতে পারেন কিডনিতে সংক্রমণ হয়েছে। গত চার দিন তাঁকে ভেন্টিলেটরে রাখা হয়েছিল। দ্রুত অবস্থার অবনতি ঘটে।”

বলিউডের চলচ্চিত্র জগতে সংগীত পরিচালক হিসাবে সাজিদ-ওয়াজিদ জুটির প্রবেশ ১৯৯৮-তে। সলমন খানের ‘প্যায়ার কিয়া তো ডরনা কেয়া’ ছবিতে সুরসৃষ্টি করেন তাঁরা। তার পর সলমনেরই ‘দাবাং’ সিরিজ, ‘পার্টনার’ ছবি সহ বেশ ক’টি ছবিতে সংগীত পরিচালক হিসাবে কাজ করেন। প্লেব্যাক গায়ক হিসাবেও ওয়াজিদের খ্যাতি ছিল – যেমন, ‘মেরা হে জালয়া’, ‘ফেভিকল সে’, ‘চিন্তা তা চিতা চিতা’, ‘মাশাল্লাহ’ ইত্যাদি।    

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন