ওয়েবডেস্ক: ব্যাপারটাকে আর যা-ই হোক, রসিকতা বলা যাবে না! কেন না, সেই স্তরে ব্যাপারটা আর সীমিত থাকল কই!

হয়েছে কী, ছেলে তৈমুর আলি খানকে জনপ্রিয় করে তুলতে গিয়ে তার আয়াকে ঘোরতর ব্যঙ্গ-বিদ্রুপের মুখে দাঁড় করিয়েছেন করিনা কাপুর খান আর সইফ আলি খান। ওই মহিলা, যাঁর নামটা পর্যন্ত আমরা জানি না, তাঁকে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় শুরু হয়েছে রঙ্গরসিকতা। এমনকি, ভদ্রতা, মানবিকতা এবং আইনি সীমা লঙ্ঘন করে সেই মহিলার বকলমে একটি সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টও তৈরি করা হয়েছে। তবে কে বা কারা এর নেপথ্যে রয়েছে- তা এখনও পর্যন্ত জানা যায়নি।

মহিলাকে নিয়ে যে ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডেলটি তৈরি হয়েছে, তার নাম রাখা হয়েছে ‘তৈমুর কি ন্যানি’! সেখানে পরিচিতি হিসাবে যা লেখা লেখা হয়েছে মহিলার, তা-ও ক্ষমার অযোগ্য- “ন্যানি আলি খান, পতৌদি পরিবারের বর্ষীয়ান সদস্য। আমি সইফ শেঠজি, করিনা শেঠানিজি, তৈমুর বাবা, কুণাল খেমু (ঘরজামাই) আর সোহা পোহার সঙ্গে থাকি”! শুধু তা-ই নয়, তৈমুরের সঙ্গে মহিলার যে সব ছবি এখনও পর্যন্ত ভাইরাল হয়েছে, তা পোস্ট করে চলেছে শালীনতাহীন টীকা-টিপ্পনি!

Nanny the Great ❤

A post shared by Nanny Ali Khan (@taimur_ki_nanny) on

যেমন, তৈমুরের সঙ্গে যে ছবিতে মহিলাকে গম্ভীর থাকতে দেখা যাচ্ছে, সেখানে লেখা হয়েছে, “আরও একটা উইকেন্ড, কিন্তু আমার ছুটি নেই, অক্ষয় কুমারের ছবিটা আমায় নিয়ে হওয়া উচিত ছিল… হলিডে, আ ন্যানি ইজ নেভার অফ ডিউটি”!

Keep the cash coming baby.. keep the cash coming

A post shared by Nanny Ali Khan (@taimur_ki_nanny) on

কখনও বা মহিলার হাসিমুখের ছবি দিয়ে চলছে তাঁর বেতন নিয়ে গর্হিত রসিকতা- “আমার অ্যাকাউন্টে মিলিয়ন ডলার বেতন ফেলে দেওয়ার পরে বসের সঙ্গে”!

আবার সব সময় যে মহিলাকে ছবিতে দেখা যাচ্ছে, তার মানে নেই! মামা রণবীর কাপুরের সঙ্গে তৈমুরের যে ছবিটি ভাইরাল হয়েছিল, তা পোস্ট করে লেখা হয়েছে- “যখন তৈমুর বাবা কথার মাঝে বুঝতে পেরেছে যে এটা রণবীর, ওর মিষ্টি আয়া নয়”!

সইফিনার তৈমুরকে জনপ্রিয় করে তোলার খেসারত দিতে গিয়ে আয়া যে বিপদে পড়বেন- এটা আঁচ করেই কি সাংবাদিকদের সামনে করিনার বাবা রণধীর কাপুর বলেছিলেন- তৈমুরের সঙ্গে সঙ্গে ওর আয়াও বিখ্যাত হয়ে উঠেছে?

দেখা যাক, এ বার অন্তত সইফিনা ছেলেকে প্রচারের আলোয় আনা বন্ধ করেন কি না!

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here