ওয়েবডেস্ক: কথায় বলে, লাস ভেগাসে অনেক কিছুই না কি হয়, কিন্তু তার পুরোটাই শেষ পর্যন্ত থেকে যায় ওখানেই, প্রকাশ্যে আসে না! কিন্তু প্রিয়াঙ্কা চোপড়া আর নিক জোনাস যখন ওখানকার এক চ্যাপেলে গেলেন আর সেই ছবি ভাইরাল হল, সবাই দাবি করতে লাগলেন- লুকিয়ে বিয়েটা সেরেই ফেলেছেন নিকিয়াঙ্কা! কেন না, সেই ছবিতে যে খ্রিস্টান বধূর মতো ফুলের তোড়া দেখা যাচ্ছে প্রিয়াঙ্কার হাতে!

তা, বিয়েটা যে হয়েই গিয়েছে, সে কথার প্রমাণ দিচ্ছে বলিউড নায়িকার ২০১৩ সালে ফিল্মফেয়ার পত্রিকাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারের প্রসঙ্গ তুলে। সেখানে জানিয়েছিলেন প্রিয়াঙ্কা- তিনি তাঁর মনের মানুষকে পাক্কা ছয় বার বিয়ে করতে চান! “প্রথম বিয়েটা হবে লাস ভেগাসের এক ছোটোখাটো চ্যাপেলে। দ্বিতীয় বিয়েটা হবে অম্বালায় আমার দাদাজির বাড়িতে হিন্দু মতে। তৃতীয় বিয়েটা আমি করতে চাই জলের তলায়, অস্ট্রেলিয়ার গ্রেট ব্যারিয়ার রিফে। চার নম্বর বিয়ে হবে লোকার্নোর পাহাড়চূড়ার চ্যাপেলে যা সুইজারল্যান্ড, জার্মানি আর ইতালির দিকে মুখ করে রয়েছে। পাঁচ নম্বরটা হবে নিকাহ, ইসলামি মতে! আর ছয় নম্বরটা কী ভাবে হবে, তা আমি ছেড়ে দিতে চাই পাত্রপক্ষের উপরেই”, বলেছিলেন নায়িকা!

আপাতত কিন্তু দেখা যাচ্ছে, প্রথম বিয়েটা লাস ভেগাসে হয়েই গেল! তা, এই যে জোধপুরের উমেদ ভবন ভাড়া করা হল, সেটা তো তালিকার দ্বিতীয় দফার সঙ্গে মিলছে না! তা হলে কি এটা পাত্রপক্ষের পছন্দ? তার আগে হিসেব মতে আরও চার বার বিয়ে সেরে নেবেন পছন্দের জায়গায় নিকিয়াঙ্কা? দেখা যাক!

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here