মুম্বই : দঙ্গল ছবিতে তাঁকে ‘নেগেটিভ ক্যারেকটর’ হিসেবে দেখানো হয়েছে। বাকি আর যে চার জন কোচ ছিলেন তাঁদেরকে তো ছবিতে দেখানোই হয়নি – এমনটাই অভিযোগ করলেন কুস্তির জাতীয় স্তরের কোচ পি আর সন্ধি। এই বিষয়টি নিয়ে তিনি ছবির অভিনেতা আমির খানের সঙ্গে দেখা করবেন ও কথা বলবেন। এমন কি কুস্তি ফেডারেশনের সঙ্গে এ ব্যাপারে কথা বলবেন বলে জানিয়েছেন সন্ধি। পি আর সন্ধি, ববিতা এবং গীতা ফোগতের কোচ। ২০১০ সালের কমনওয়েলথ গেমসের আগে তিন বছর তিনি গীতা আর ববিতাকে প্রশিক্ষণ দিয়েছিলেন। সেই সন্ধিকেই ‘দঙ্গল’ ছবিতে ‘পি আর কদম’-এর চরিত্রে চিত্রায়িত করা হয়েছে।

dangal-1

সন্ধি বলেন, সিনেমায় বিনোদনের জন্য কিছু টানাপোড়েন, কিছু ছোটোখাটো ঝামেলা দেখানো হয়েছে। সেটা তিনি বোঝেন। কিন্তু তাঁর বক্তব্য, সেই জন্য তাঁর চরিত্রটাকেই ‘নেতিবাচক চরিত্র’ হিসেবে দেখানোর কী দরকার ছিল? কারণ, তাঁর সঙ্গে মহাবীর ফোগতের সম্পর্ক খুবই ভালো ছিল। তিনি জানান, যত দিন ফোগতের মেয়েরা তাঁর কাছে প্রশিক্ষণ নিয়েছে তার মধ্যে কোনোদিনই মহাবীর ওই বিষয়ে মাথা ঘামাননি। অথচ সেই বিষয়টিকে সম্পূর্ণ ভিন্ন ভাবে দেখানো হয়েছে। তাঁকে খারাপ ভাবে তুলে ধরা হয়েছে দর্শকদের সামনে।

কথা প্রসঙ্গে ৭০ বছরের সন্ধি জানান, কৃপা শঙ্কর বিষ্ণই আমির খানকে ছবির জন্য কুস্তির প্রশিক্ষণ দিয়েছেন। এই কৃপা তাঁরই ছাত্র। তাঁর দাবি, লুধিয়ানায় শুটিং-এর সময় আমির খান তাঁর সঙ্গে দেখা করেন। কুস্তির বিষয়ে বেশ কিছু কথাও জানতে চান আমির। কিন্তু একবারও তাঁকে ছবির ব্যাপারে জানানো হয়নি। কোচের চরিত্র কীভাবে দেখানো হচ্ছে ছবিতে সে বিষয়ে তাঁকে জানানো উচিত ছিল।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here