Padmavati Still

ওয়েবডেস্ক: খারাপ লাগলেও অস্বীকার করার উপায় নেই- পশ্চিমি দুনিয়া এই দেশের চেয়ে এগিয়ে রয়েছে বেশ কয়েক কদম। সঞ্জয় লীলা বনসলির ‘পদ্মাবতী’র মুক্তি সংক্রান্ত ঘটনাতেও তা যেন ফের নতুন করে প্রমাণিত হল!

ব্যাপারটা কী?

আমাদের দেশে যেমন সেন্সর বোর্ড কোনো ছবি মুক্তির আগে তা দেখে ছাড়পত্র দেয়, বাইরের দেশগুলোতেও তেমনই! সেই প্রথা মেনেই ‘পদ্মাবতী’ ছবিটি দেখেছিল ব্রিটিশ বোর্ড অফ ফিল্ম ক্লাসিফিকেশন। তার পর তারা সাফ জানিয়েছে, ছবিটিতে আপত্তি করার মতো কিছুই নেই। একটি দৃশ্যও বাদ না দিয়ে অনায়াসেই তা মুক্তি পেতে পারে ব্রিটেনে, নির্ধারিত ১ ডিসেম্বরেই।

তবে সব নিয়মকানুন মেনে ব্রিটিশ সেন্সর বোর্ড ছবিটিকে ১২এ তকমা দিয়েছে। অর্থাৎ ১২ বছরের নীচে বয়স যাদের, তারা একা একা ছবিটি দেখতে যেতে পারবে না। তার জন্য সঙ্গে থাকতে হবে অভিভাবককে। এর কারণ হিসেবে বিবিএফসি জানিয়েছে, ছবিটিতে মৃদু হলেও হিংসাত্মক উপাদান রয়েছে। রয়েছে শারীরিক ক্ষতের বিশদ দৃশ্যায়ন। এ ছাড়া ছবিটি সম্পর্কে লেখা হয়েছে বিবিএফসি-র ওয়েবসাইটে- “পদ্মাবতী এক হিন্দিভাষী এপিক ড্রামা যেখানে এক সুলতানের এক রাজপুত রানির জন্য তার রাজ্য আক্রমণের কাহিনি বর্ণিত হয়েছে।”

তা হলে কি ভারতের আগে ব্রিটেনে মুক্তি পাচ্ছে ‘পদ্মাবতী’?

সম্ভাবনা থাকলেও এ ব্যাপারে বেঁকে বসেছেন খোদ প্রযোজকরাই! তাঁরা একই তারিখে পৃথিবীর সর্বত্র ছবিটার মুক্তি চান। শোনা গিয়েছে, খুব সম্ভবত ২০১৮ সালের পয়লা জানুয়ারি সারা বিশ্বে মুক্তি পাবে ছবিটি। এ ভাবে ভাগ করে করে একবার বিদেশে, এক বার দেশে ছবি মুক্তিতে তাঁরা ঘোরতর নারাজ। প্রযোজনা সংস্থা ভিয়াকম ১৮ মুভিজ এ প্রসঙ্গে জানিয়েছে, তারা পূর্ব পরিকল্পনা মতোই এগোবে। কেন, তা ব্যাখ্যা করে বলছেন বলিউডের বাণিজ্য বিশ্লেষকরা।

বলিউডের প্রথম সারির বাণিজ্য বিশ্লেষক রমেশ বালা এ ব্যাপারে কী বলছেন? তিনি লিখেছেন তাঁর টুইটে, “নতুন বছরের গোড়ার দিকে ছবি মুক্তির সিদ্ধান্ত ভুল কিছু নয়। তখন ছুটির মেজাজে থাকবে দেশ আর বিদেশের জনতা। ফলে বাণিজ্যের দিক থেকে কোনো লোকসান হবে না। তা ছাড়া এ দেশে সেন্সর বোর্ডের অনুমতি যখন নিতেই হত, তখন আর খামোখা ব্রিটেনে আগেভাগে মুক্তি করিয়ে লাভ কী! পাশাপাশি, এই সময়ের মধ্যে রাজনৈতিক উত্তেজনাও প্রশমিত হয়ে যাবে।”

তবে নিন্দুকরা ব্রিটেনে ভারতের আগে ‘পদ্মাবতী’র মুক্তি না করানোর আরও একটি কারণ দর্শিয়েছেন। সেটা ছবির নকল সংক্রান্ত সমস্যা। যদি বিদেশ থেকে ছবিটার নকল ডিভিডি-বন্দি হয়ে ছড়িয়ে পড়ে, তবে ভারতে ছবির ব্যবসা বড়োসড়ো মার খাবে। সেই জন্যই ব্রিটেনে আগে ছবি মুক্তির ব্যাপারে পিছিয়ে এসেছে প্রযোজনা সংস্থা।

অবশ্য এ ব্যাপারে শীর্ষ আদালতের ভূমিকার কথাও না বললেই নয়। বৃহস্পতিবার প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র এবং বিচারক এ এম খানউইলকর ও ডি ওয়াই চন্দ্রচূড়ের বেঞ্চ ভারতের আগে অন্যত্র যাতে ‘পদ্মাবতী’ মুক্তি না পায়, সেই মামলার শুনানিতে রাজি হয়েছে। আদালত জানিয়েছে, ২৮ নভেম্বর এই মামলার শুনানি হবে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here