কলকাতা: “তোমায় গান শোনাব”, রবীন্দ্রনাথের বহু পরিচিত, বহুল রেকর্ড করা গানগুলোর মধ্যে অন্যতম এই গান। এই গানের চলন, শ্রুতি খুবই স্নিগ্ধ। ঠিক যেন ঘুমের ঘোরে আচ্ছন্ন ভোরের কোনো এক মুহূর্ত। এই গানের শতবর্ষ উদযাপন করা হল!

হ্যাঁ, ঠিকই শুনছেন, এই গানের এই বছর তার রচনাকালের শততম বর্ষে পদার্পণ করল। সাধারণত আমরা কোনো ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান, কোনো দেশের, শহরের জন্মদিন পালন হতে দেখেছি। কিন্তু এ বার আমরা একটা গানের জন্মদিন তাও তার শতবর্ষ উদযাপনের সাক্ষী থাকলাম। ইতিহাসে এ রকম নজির খুবই কম, বিশেষত কোনো রবীন্দ্রসঙ্গীতের আলাদা করে জন্মদিন পালন হয়েছে এমটা ঠিক মনে পড়ে না।

বিশিষ্ট সুরকার-যন্ত্রসংগীত শিল্পী দেবজ্যোতি মিশ্রের সঙ্গীত আয়োজনে, সঙ্গীত শিল্পী জোনাকি মুখোপাধ্যায়ের কণ্ঠে, টাইমস মিউজিক থেকে মুক্তি পেল এই গান আগামী , স্পাইসেস অ্যান্ড সসেস ক্যাফেতে আইসিসিআর-এ। উপস্থিত ছিলেন জোনাকি মুখোপাধ্যায়, দেবজ্যোতি মিশ্র-সহ এই সন্ধ্যার বিশেষ অতিথি শিল্পী অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায়।

এটা একটা গানের শতবর্ষ। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ১৯২৩ সালের ১৩ মার্চ এই গান রচনা করেন। স্বরলিপিকার ছিলেন দিনেন্দ্রনাথ ঠাকুর। গানটা পিলু রাগে আধারিত। তাল দাদরা। প্রেম পর্যায়ের এবং গান উপপর্যায়ের গান, শান্তিনিকেতন পত্রিকায় প্রথম প্রকাশিত হয়।

এই বিশেষ আয়োজনকে আরও বিশেষ করে গড়ে তোলার জন্য উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল “মাই স্ট্যাম্প” প্রকাশের। ভারতীয় ডাক বিভাগের এক বিশেষ সুবিধা “মাই স্ট্যাম্প”। এই গান প্রকাশের বিশেষ উদযাপনকে স্মরণীয় করে রাখতে “মাই স্ট্যাম্প” প্রকাশ করা হল।

জোনাকি মুখোপাধ্যায় বললেন,” আমার গানের মিউজিক ভিডিয়োতে ফেলে আসা ছোটোবেলার কথা ধরা পড়েছে। ভালো লাগছে যে গানটার শতবর্ষে আমার গানটা প্রকাশ করতে পারলাম এই ভেবে।”

দেবজ্যোতি মিশ্র বললেন,”এ গান আমার কাছে এক বাঁধন হারা প্রেমের গান। বিশু পাগল এখানে যেন শুধু নন্দিনীর জন্য নয়, রানুর জন্য ভানু গাইছেন এ গান। এমন একটি গানের শতবর্ষে এই বিশেষ মাই স্ট্যাম্পটির একটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা থেকে যাবে সময়ের কাছে।”

অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায় বললেন, “নিঃসেন্দহে বলা যায় রবীন্দ্রনাথের গানের কাছে আমরা বারে,বারে নিজেদের প্রয়োজনে আশ্রয় নিই। এটা সত্যিই খুব অন্যরকম এক উপলক্ষ, যেখানে এমন একটা কিংবদন্তি হয়ে যাওয়া গানের শতবর্ষ পালন করলাম। আর দেবজ্যোতি মিশ্রকেও অনেক শুভেচ্ছা এই গানের মাধ্যমে ওঁর প্রোডাকশন হাউজের যাত্রা শুরু করার জন্য।”

আরও পড়তে পারেন: ১৬টি ভাষায় গান গেয়েছেন আদিত্য নারায়ণ

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন