দীর্ঘ ৪১ দিনের লড়াই শেষ। হল না শেষ রক্ষা। ৫৮ বছর বয়সেই থেমে গেল কমেডিয়ান রাজু শ্রীবাস্তবের পথ চলা। টিভির পর্দায় আর তাঁর প্রাণ খোলা হাসি দেখতে পাবেন না দর্শক।

গত ১০ আগস্ট জিমে শরীর চর্চার সময় হার্ট অ্যাটাক ও ব্রেন স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে দিল্লির এমস হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছিলেন রাজু শ্রীবাস্তবকে। এমস-এ ভর্তি হওয়ার পরে তাঁর অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি করা হয়। প্রথম দু’দিন তাঁর শারীরিক অবস্থা বেশ সংকটজনক থাকলেও মাঝে আশার আলো দেখিয়েছিলেন চিকিৎসকেরা। জ্ঞান না ফিরলেও হাত-পা নাড়তে পারছিলেন অভিনেতা। এভাবেই চলছিল দিন। কিন্তু গত কয়েক সপ্তাহ ধরে পরিস্থিতি ক্রমেই খারাপ হতে থাকে। অতি সংকটজনক হয়ে ওঠে।

এরই মধ্যে বেশ কয়েকবার জ্ঞান ফিরেছিল অভিনেতার। চিকিৎসক-সহ পরিবারের সদস্যরা আশা প্রকাশ করেছিলেন, তিনি দ্রুত সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরবেন। কিন্তু আবার তাঁর জ্বর আসে এবং তারপর আর তিনি সেরে উঠতে পারলেন না।

মঞ্চ হাসিতে মাতিয়ে রাখা শিল্পীর মধ্যে সাফল্যের অহংকার ছিল না কখনও। তিনি সবসময়ই মানুষকে সাহায্য করার জন্য সর্বদা প্রস্তুত ছিলেন। বলিউডে তাঁর আগমন এবং নিজের জায়গা তৈরি করে নেওয়ার জন্য লড়াইও ছিল বেশ কঠিন। মুম্বইয়ে নিজের প্রথম শোয়ের জন্য মাত্র ৫০ টাকা পেয়েছিলেন তিনি।

এক নজরে রাজু‌

জন্ম:২৫ ডিসেম্বর ১৯৬৩

মুম্বই: ১৯৮২ সালে মুম্বই পাড়ি। শুরুতে অটোরিকশা। শোলে-এর অমিতাভ বচ্চনের মিমিক্রি। তাঁর অভিনীত গজধরের চরিত্রটি খুব জনপ্রিয় হয়েছিল। তেজাব, ম্যায়নে প্যার কিয়া, বাজিগর-এর মতো অংসখ্য ছবিতে নামমাত্র ভূমিকায় অভিনয়।

২০০৫: দ্য গ্রেট ইন্ডিয়ান লাফটার চ্যালেঞ্জ-এ বিপুল জনপ্রিয়তা। তার পর থেকে কমেডি কা মহা মুকবলা, লাফ ইন্ডিয়া লাফ-এর মতো অনেক টেলিভিশন শোয়ে মঞ্চ মাতিয়েছেন।

২০০৭: বম্বে টু গোয়া ছবি তাঁর অভিনীত অ্যান্টনি গঞ্জালভেস চরিত্রটি মনে রাখার মতোই। তার পরে কাজ করেছেন অনেক ছবিতেই।

২০০৯: বিগ বস রিয়েলিটি শো-এ অংশগ্রহণ।

২০১৩: কমেডি নাইটস উইথ কপিল-এও অংশগ্রহণ।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন