‘নকল করে বড়ো হওয়া যায় না’, লতা মঙ্গেশকরের মন্তব্যের পাল্টা জবাব রাণুর

0

ওয়েবডেস্ক: রানাঘাট স্টেশনের প্ল্যাটফর্ম থেকে বলিউডে যাওয়া। রূপকথার মতোই উত্থান রাণু মারিয়া মণ্ডলের। সোশ্যাল মিডিয়ার হাত ধরে গোটা দেশে পরিচিতি পাওয়া রাণুর সাফল্যে নিয়ে মুখ খুলতে শোনা গিয়েছে সুরসম্রাজ্ঞী লতা মঙ্গেশকরকেও। তিনি রাণু প্রশংসা করেও বলেছিলেন, “নকল করে বড়ো হওয়া যায় না”। কোকিলকণ্ঠীর সেই মন্তব্যেরই প্রতিক্রিয়া জানালেন রাণু।

বলিউডের সংগীত পরিচালক হিমেশ রেশমিয়ার নতুন ছবিতে গান গেয়ে ফেলেছেন রাণু। তাঁর কণ্ঠে গাওয়া তেরি মেরি কাহানি প্রকাশের পর সাফল্যও পেয়েছে ব্যাপক। তবে তাঁর এই সাফল্যের নেপথ্যে যে লতা মঙ্গেশকরের অবদান অস্বীকার্য নয়, সে কথা জানিয়েছেন রাণু।

Loading videos...

লতা মঙ্গেশকরের ‘এক প্যায়ার কা নাগমা হ্যায়’ নেটিজেনদের হৃদয় জয় করেছিল। যার জেরে পরে তিনি বলিউডেও পাড়ি দেন। রাণুর গান প্রসঙ্গে কয়েক দিন আগেই লতা বলেন, “অগর মেরে নাম অউর কাম সে কিসি কো ভালা হোতি হ্যায় তো ম্যায় আপনে-আপ খুশ-কিসমত সমঝাতি হুঁ” (যদি আমার নাম এবং কাজে কারও ভালো হয়, তা হলে আমি নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করি)।

একই সঙ্গে তিনি বলেন, “আমি মনে করি এটা সাফল্যের জন্য কোনো দীর্ঘস্থায়ী উপকরণ নয়। এর আগে আমার গাওয়া অথবা কিশোরদার (কিশোরকুমার), রফিসাবের (মহম্মদ রফি) গান অনেক শিল্পীকেই অনুপ্রাণিত করেছে। সেটা স্বল্প সময়ের জন্যই। কিন্তু কেউ স্থায়ী জায়গা করে নিতে পারেননি। আসলে কাউকে নকল করে বড়ো হওয়া যায় না”।

নবভারত টাইমস-কে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে রাণু এ প্রসঙ্গে বলেন, “বয়সের দিক থেকে আমি লতাজির থেকে অনেক ছোটো। ভবিষ্যতেও আমি ছোটোই থাকব। আমি ছো‌টোবেলা থেকে ওনার গান শুনেই বড়ো হয়েছি। ওনার গলা আমার খুব ভালো লাগে”।

তবে হিমেশ একটি সাক্ষাৎকারে স্পষ্টতই জানিয়েছেন, “রাণুর কণ্ঠ লতা মঙ্গেশকরের কপি নয়”।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.