padmavati

ওয়েবডেস্ক: অবশেষে সেই চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের খবর এল। পিছিয়ে দিতেই হল ‘পদ্মাবতী’র মুক্তি। ছবিটির প্রযোজকরা জানিয়েছেন, কোনোরকম বাধার সম্মুখীন হয়ে এই সিদ্ধান্ত তাঁরা নেননি। যদিও তাঁদের এই বিবৃতি জাগিয়ে দিয়েছে এক অমোঘ প্রশ্ন। বাধা যদি নাই থাকে, তবে নির্ধারিত সময়ে ছবি মুক্তি পাবে না কেন?

প্রযোজকরা যাই বলুন না কেন, খবর বলছে এই দেরি করে ছবি মুক্তির কারণ আসলে সেন্সর বোর্ডের চাপ। দিন কয়েক আগেই বোর্ড ছবিটি ফেরত পাঠিয়েছে নির্মাতাদের কাছে। ছবির রেজিস্ট্রেশনের কাগজপত্রে নাকি রয়ে গিয়েছে কিছু ভুলচুক। সেই সব সমস্যার সমাধান দ্রুত সম্ভব নয়। বিশেষ করে ছবিটি নিয়ে এই উত্তপ্ত পরিবেশে। কাজেই ছবির মুক্তি পিছিয়ে দেওয়া ছাড়া কোনো পথও নেই।

“সেন্সর বোর্ডের নির্দেশ মান্য করে, যা কিছু নথিপত্রে ভুল রয়ে গিয়েছে সেসব শুধরে আমরা তাড়াতাড়িই ছবিটির মুক্তির ব্যবস্থা করব”, জানিয়েছে ভায়াকম১৮ মুভিজ।

তাহলে কবে মুক্তি পাচ্ছে ‘পদ্মাবতী’? সে ব্যাপারে এখনই কিছু জানার উপায় নেই। সেন্সর বোর্ড ছাড়পত্র না দিলে ছবি মুক্তির তারিখ ঘোষণা করা হবে না, জেদ প্রযোজকদের!

বিরোধীরা ঘটনায় খুশি হলেও বলিউডে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। ক্ষোভে ফেটে পড়ছে বি-টাউন। তার মধ্যেই শাবানা আজমি বিশেষ করে অভিযোগের আঙুল তুলেছেন রাজস্থান সরকার এবং সেন্সর বোর্ডের দিকে। “রাজস্থান সরকারের কর্তব্য ওখানে অপরাধের দমন! ছবির সেটে কিন্তু বিরোধীরা গুলি চালিয়েছিল। এটা সংবিধান অনুযায়ী দণ্ডনীয় অপরাধ। কিন্তু বসুন্ধরা রাজে বসে আছেন চুপ করে। এর কোনও প্রতিকারই তিনি করছেন না। এর চেয়ে খারাপ আর কী হতে পারে”, সম্প্রতি এক সাংবাদিক বৈঠকে এ কথা জানিয়েছেন শাবানা।

পাশাপাশি, ‘পদ্মাবতী’র মুক্তি পিছিয়ে যাওয়ায় সেন্সর বোর্ড আর কেন্দ্রীয় সরকারের প্রতি ষড়যন্ত্রের অভিযোগও এনেছেন তিনি। “ছুতোয় নাতায় ছবির মুক্তিতে বাধা দেওয়া হল কেন? না, সামনে গুজরাত ভোট! আমরা কি কিছুই বুঝি না? সরকার ভাবছে, ছবিটির বক্তব্য সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করতে পারে। এর চেয়ে হাস্যকর কিছুই হয় না”, শাবানার সাফ অভিমত!

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here