ওয়েবডেস্ক: চলতি বছরের মার্চেই খবর মিলেছিল- দক্ষিণী যৌনপ্রতিমা শাকিলার জীবন নিয়ে বলিউডে একটা ছবি বানাতে চলেছেন পরিচালক ইন্দ্রজিৎ লঙ্কেশ। এও জানা গিয়েছিল, শাকিলার চরিত্রে অভিনয়ের জন্য তিনি বেছে নিয়েছেন রিচা চড্ডাকে।

সেই ছবির কাজ শুরু হওয়ার আগে বেঙ্গালুরু গিয়ে রিচা দেখা করে এলেন বছর একচল্লিশের শাকিলার সঙ্গে। দুই নায়িকার কথায় খুব স্বাভাবিক ভাবেই উঠে এল ছবিতে যৌনদৃশ্যে অভিনয় নিয়ে তাঁদের সাবলীল থাকার প্রসঙ্গ। কেন না, প্রাপ্তবয়স্কদের ছবি করেই মূলত বিনোদুনিয়ায় নাম কিনেছিলেন শাকিলা।

আরও পড়ুন: কাস্টিং কাউচ: ইমরানের কুপ্রস্তাব নাকচে বলিউডে কাজ নেই, এটাই বলছেন মল্লিকা শেরাওয়াত?

Candid . . . . . #NoMakeup @adimendiratta

A post shared by Richa Chadha (@therichachadha) on

“সত্যি বলতে কী, ব্যক্তিগত ভাবে চিন্তা-ভাবনার কথা যদি বলেন, তা হলে বিষয়টা আমার কাছে অস্বস্তিকরই বলব! কিন্তু ক্যামেরা চললে ওটা নিয়ে দ্বিধার কোনো জায়গা থাকে না, তখন ওটাই আমার কাজ! সেই জন্য লোকে আমায় সাহসী তকমা দেন, কিন্তু আদতে আমি মোটেও ও রকম নই”, সোজাসাপটা জানাচ্ছেন রিচা!

এবং এই বিষয়ে শাকিলার বক্তব্যও সঙ্গত করছে রিচাকেই! “দেখুন, ব্যক্তজীবনে আমি খুবই লাজুক প্রকৃতির এক মহিলা! কোনো দিন ওড়না ছাড়া রাস্তায় বেরনোর কথা ভাবিই না! শট দেওয়ার আগেও আমার গায়ে ওড়না থাকত! শট দিয়েই আবার তা গায়ে তুলে নিতাম! আসলে ওটা আমার কাজ, তাই করেছি”, অকপট শাকিলা!

My first Post in Instagram #shakeela

A post shared by shakeela (@shakeela_offical) on

পাশাপাশি শাকিলা এও স্বীকার করেছেন, প্রাপ্তবয়স্কদের ছবি তিনি করেছেন কেবল টাকার জন্যই! “আমরা অনেকগুলো ভাই-বোন! যখন কাজ করতে এসেছি- সবাই ছোটো! মা বলতেন- আমি জানি তুই এদের মানুষ করবি! কিন্তু তার জন্য তো টাকার দরকার! যা আমায় এ ধরনের ছবিই দিত! ফলে আমার না বলার কোনো জায়গাই ছিল না”, সরাসরি জানিয়েছেন নায়িকা।

এ দিকে বলিউড বলাবলি করছে, পর্দায় শাকিলা হয়ে ওঠার জন্য রিচা ওজন বাড়াতে পারেন! কেন না, তন্বী নায়িকা বলতে যা বোঝায়, তা শাকিলা কোনো দিনই ছিলেন না! “আমার মনে হয় না- শাকিলার চরিত্রে অভিনয়ের জন্য ওজন বাড়ানোর দরকার আছে! আমাদের ছবির মূল বক্তব্য একটাই- কী ভাবে পুরুষশাসিত সমাজে নিজের জায়গা করে নিয়েছিলেন শাকিলা! আমরা সেটুকুই ধরে এগোচ্ছি”, দাবি রিচার!

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here