ওয়েবডেস্ক: কমিক্সটি কেবল নামেই মার্ভেল! আদতে যে তাকে অত্যাশ্চর্য করে তোলার নেপথ্যে রবিবার পর্যন্তও কাজ করে গিয়েছেন ৯৫ বছরের এক বৃদ্ধ, সেই তিনিই তো আসল সুপারহিরো!

খবর বলছে, অনেক দিন ধরে নিউমোনিয়া এবং চোখের সমস্যায় ভুগতে থাকা মার্ভেল কমিক্সের কর্ণধার, স্পাইডারম্যান-আয়রনম্যান-হাল্কের মতো অমর চরিত্রের স্রষ্টা স্ট্যান লি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন তাঁর হলিউড হিলসের বাড়িতে, মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৯৫ বছর। সেডার্স-সিনাই মেডিক্যালে সেন্টারে অতঃ পর নিয়ে যাওয়া হলে সেখানে তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা।

আরও পড়ুন: ছুটি থেকে ফিরে মনমরা রুক্মিণী, যদিও ঘাবড়ে দেবে দেবের উচ্ছ্বাসের ভিডিও

জেনে অবাক হতে হয়, মৃত্যু ঘোষণার ঘণ্টাখানেক আগেও তাঁর অফিসিয়াল মাইক্রো-ব্লগিং হ্যান্ডেল থেকে ভেটেরান ডে-র শুভেচ্ছা জানিয়ে একটি টুইট প্রকাশিত হয়েছে। হিসেব মতো, তখন আর লি বেঁচে নেই! আসলে, তাঁর দলের থেকে করা এই টুইট যেন স্রষ্টা আর সুপারহিরোর সৃষ্টিদেরই ফের মনে করিয়ে দেওয়া!

সেই টুইট স্পষ্ট করে দিচ্ছে বক্তব্য- দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়ে সেনাদলে সিগন্যাল কর্প বিভাগে কাজ করতেন স্ট্যান লি। পার্ল হারবারে বোমা পড়ার পরে তিনি সেনাদল থেকে ছাঁটাই হয়ে শুরু করেন লেখালেখির অধ্যায়। তবে, সেনাদলেও যে তিনি নানা রকম বিজ্ঞপ্তি লেখা, পোস্টার আঁকার কাজ করতেন এবং সেই সুবাদে পরিচিত হয়েছিলেন প্লেরাইট নামে, তা জানিয়ে দিয়েছে টুইট!

অবশ্য, সাধের মার্ভেল কমিক্সের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য এবং সব চেয়ে জনপ্রিয় চরিত্রগুলোর স্রষ্টা হলেও এক সময়ে সংস্থার বিরুদ্ধেই মামলা করেছিলেন লি। যখন কমিক্স থেকে পুরোপুরি হলিউডের দিকে সরে আসছে সংস্থা এবং সমস্যা দেখা দিচ্ছে রয়্যালটি সংক্রান্ত বিষয়ে। ২২০২ সালে করা এই মামলা জিতে তিনি পেয়েছিলেন ১০ মিলিয়ন ডলার!

বলতে দ্বিধা নেই, মার্ভেলের আসল লোকসান, আর্থিক এবং বাকি সবটুকু, হল এ বারেই! লি তো আর ফিরে আসবেন না!

 

View this post on Instagram

 

💔💖

A post shared by Rukmini Maitra (@rukminimaitra) on

তেমনই বলতে দ্বিধা নেই, তাঁর প্রয়াণে সারা বিশ্ব জুড়ে চলচ্চিত্রের সঙ্গে যুক্ত যাঁরা, তাঁদের পাশাপাশি, মার্ভেল-মোদীরাও আপাতত লি-কে স্মরণে-সম্মানজ্ঞাপনে মগ্ন। কিন্তু টলিউডে তার কোনো হদিশ নেই। স্রেফ মার্ভেল-ভক্ত রুক্মিণী মৈত্র শ্রদ্ধা জানাতে ভোলেননি স্ট্যানকে! রুক্মিণীর কাছ থেকে এই সম্মান আসবে, তা কেউ কল্পনাও করেননি! কিন্তু যা কল্পনা করা কঠিন, তাকেই কি বার বার রূপ দেননি লি?

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here