ওয়েবডেস্ক: রাজস্থান আদালত সাফ জানিয়ে দিয়েছে যে ১৯ বছর একটা মামলা নিয়ে টানাপোড়েন আর নয়! চলতি বছরের ৫ এপ্রিল তারিখে তাই সলমন খানের কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা মামলার চূড়ান্ত শুনানি হবে।

আর এই খবর ছড়িয়ে পড়ার পর থেকেই না কি আতঙ্কের আবহ তৈরি হয়েছে বলিউডের অন্দরমহলে। কারণ একটাই- সলমন খানের উপরে যে বিপুল পরিমাণ টাকাটা লগ্নি করেছেন প্রযোজকেরা, সেটার এ বার কী হবে? মামলায় দোষী সাব্যস্ত হলে তো নায়কের হাজতবাস হবেই! সে ক্ষেত্রে বেশ মোটা অঙ্কের একটা লোকসানের টাকা গুনতে হবে বলিউডকে।

salman khan

জানা গিয়েছে, সলমন খানের হাতে না কি এখন অগুনতি কাজ রয়েছে। ‘রেস ৩’, ‘ভারত’, ‘দাবাং ৩’, ‘টাইগার ৩’- এই ছবিগুলো যে হতে চলেছে, সেটা পাকা খবর! এ ছাড়াও আরও নানা বলিউড প্রোজেক্টের সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন সলমন। সব মিলিয়ে, অনেকেই তাকিয়ে রয়েছেন তাই নায়কের দিকে!

যদিও নায়কের আইনজীবীরা প্রকাশ্যেই আশ্বাস দিচ্ছেন যে এ রকম কিছুই হবে না! আইনজীবীরা আমাদের জানিয়ে দিয়েছেন যে সলমন খান মামলায় বেকসুর খালাস পাবেন! আর যদি তা না-ও পান, তা হলেও তাঁর জামিনের ব্যবস্থা আইনজীবীরা করবেনই, জানিয়েছেন খান পরিবারের এক ঘনিষ্ঠ ব্যক্তি।

১৯৯৮ সালে সুরজ বরজাতিয়ার ‘হম সাথ সাথ হ্যায়’ ছবির শুটিং করতে গিয়ে যোধপুরের কঙ্কনি গ্রামে ২ অক্টোবর দু’টি বিরল প্রজাতির কৃষ্ণসার হরিণ শিকার করে মামলায় জড়ান সলমন খান। রাজস্থান আদালতে সেই মামলা ওঠায় তাঁর পাঁচ বছরের কারাবাসের সাজাও ঘোষণা হয়। কিন্তু আপাতত জামিনে রয়েছেন নায়ক।

salman khan

তাঁর সঙ্গে এই কৃষ্ণসার হত্যা মামলায় নাম জড়িয়েছিল ছবির আরও তিন অভিনেতা সইফ আলি খান, সোনালি বেন্দ্রে এবং নীলমেরও! যোধপুর আদালত সাফ জানিয়ে দিয়েছে, ৫ এপ্রিল সবাইকেই হাজিরা দিতে হবে আদালতে। এ ছাড়া মামলার সাক্ষী হিসাবে দুষ্যন্ত সিং নামে এক স্থানীয় ব্যক্তিরও আদালতে হাজিরা দেওয়ার কথা!

উচ্চ আদালতের তরফে কৃষ্ণসার হত্যা এবং নিম্ন আদালতের তরফে বেআইনি ভাবে অস্ত্র রাখা- এই দু’টি মামলাই চলছে সলমন খানের বিরুদ্ধে। দু’টিরই নিষ্পত্তি ৫ এপ্রিল হবে বলে খবর!

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here