মুম্বই : বাড়িতে বন্দুক রেখে সাজা হয়েছিল তাঁর। জেল খাটা হয়ে গিয়েছে। খারাপ লোক থেকে ভালো মানুষ হয়ে গিয়েছেন সঞ্জয় দত্ত। বলিউডও তৈরি। নায়কের জীবন নিয়ে বায়োপিক বানাচ্ছেন পরিচালক রাজকুমার হিরানি। সঞ্জয়ের ভূমিকায় অভিনয় করবেন বলিউডের বর্তমান হার্টথ্রব রণবীর কাপুর। এমন পরিস্থিতিতে ঘুরপথে প্রচার শুরু করে দিলেন সঞ্জয়। বললেন, এক কালে তিনি মেয়েদের সঙ্গে কথা বলতে পারতেন না। বন্ধুরা তাঁকে বলেছিল, ড্রাগ খেলে ভয় কেটে যাবে। তাই তিনি হেরোইন খাওয়া শুরু করেছিলেন।

তাঁর মায়ের ক্যান্সারের সময়, ড্রাগের নেশা তাঁকে এতটাই গ্রাস করেছিল যে তাঁর স্বাভাবিক বিচার-বুদ্ধি লোপ পেয়ে যায়। এক বার তিনি মোজায় ১ কিলো হেরোইন নিয়ে বিমানে উঠেছিলেন। সেই বিমানে তাঁর সঙ্গে তাঁর দুই বোনও ছিল। সঞ্জয়ের কথায়, “সে কালে বিমানে চেকিং খুব একটা জোরদার ছিল না। …আমি ধরা পড়তাম, তো ঠিক ছিল কিন্তু এখন ভাবি তেমন হলে আমার বোনেদের কী হত ? ড্রাগ এমনই করে দেয় মানুষকে। পরিবার বা অন্য কিছুর কথা মাথায় থাকে না”।

রুপালি পর্দায় গান্ধীগিরি করে তাক লাগিয়ে দেওয়া মুন্নাভাই, তরুণদের ড্রাগ থেকে শতহস্ত দূরে থাকতে পরামর্শ দিয়েছেন। তাঁর কথায়, “ড্রাগের জন্য আমার অনেক ক্ষতি হয়েছে। কোনো মাদক নয়, জীবনের নেশায় থাকো। ভালো কাজ করো এবং স্বীকৃতি আদায় করো। জীবনের চেয়ে বড়ো নেশা কিছুতে নেই”।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here