ওয়েবডেস্ক: ২০১৭ সালের মে মাসেই বদলে গিয়েছিল সম্পর্কের সমীকরণ। যখন বাম-জমানার মুখ্যমন্ত্রীর কাছের লোক সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত থেকে গ্রহণ করেছিলেন বঙ্গবিভূষণ সম্মান। তার পরে মাঝে মধ্যেই দুজনের সাক্ষাতের ঐতিহাসিক মুহূর্ত রচিত হয়েছে। চলতি বছরের অগস্ট মাসে যখন ছোটোপর্দার কলাকুশলীরা বনধে নামলেন, তখনও সমস্যা সমাধান সংক্রান্ত আলোচনার জন্য নবান্ন-এ হাজিরা দিয়েছিলেন সৌমিত্র। আর এ বার, ২০১৮-র কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানেও মমতার ডাকে সাড়া দিয়ে নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামের মঞ্চে উপস্থিত থাকছেন তিনি। “হ্যাঁ, আমাকে কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের উদ্বোধনে উপস্থিত থাকার আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। আমি সেই আমন্ত্রণ স্বীকারও করেছি”, বলছেন সৌমিত্র।

আরও পড়ুন: কলকাতা ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের ছবি দেখানো হবে মাদার ওয়াক্স মিউজিয়ামে

মুহূর্তটিকে বিরতলতম করে রাখার জন্যই পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রী আমন্ত্রণ পাঠিয়েছিলেন সত্যজিৎ রায়ের ‘অভিযান’ ছবির সূত্রে সৌমিত্রর একদা সহকর্মিণী ওয়াহিদা রহমানকে। ওয়াহিদাও সেই আমন্ত্রণ স্বীকার করেছেন। দুজনের যৌথ অভিযানে এ বারের চলচ্চিত্র উৎসব যে এক আলাদা মাত্রা পাবে, তা নিঃসন্দেহে বলা যায়। এ ছাড়া প্রতি বারের মতো এ বছরেও উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শহর পাবে জয়া বচ্চন, অমিতাভ বচ্চন এবং শাহরুখ খানের সান্নিধ্য। খবর বলছে, উৎসবে হাজিরা দেবেন ইরানের চলচ্চিত্র পরিচালক মাজিদ মাজিদিও।

অবশ্য, কোনো না কোনো ভাবে বদলই যে ‘অভিযান’ ছবির মূল, সে কথাটার খেই ধরিয়ে দিতে ভোলেননি সত্যজিৎ রায়ের কৃতী পুত্র, পরিচালক সন্দীপ রায়। “অভিযান-এর পর আর কোথাও দুজনকে একসঙ্গে দেখেছি বলে তো মনে পড়ছে না। এটা খুবই অভিনব এক পরিকল্পনা। অবশ্য এটা জানিয়ে দিই, ছবিটা কিন্তু প্রথমে বাবার করার কথা ছিল না। বাবা চিত্রনাট্য লিখেছিলেনচ ছবিটা পরিচালনার কথা ছিল বিজয় চট্টোপাধ্যায় আর দুর্গাদাস মিত্রর। যাই হোক, দুজনের মধ্যে মনোমালিন্য হওয়ায় শেষ পর্যন্ত বাবাকেই দায়িত্ব নিতে হয়”, জানিয়েছেন সন্দীপ।

কলকাতা অবশ্য নিশ্চিন্ত! সমীকরণ বদলের সঙ্গে সঙ্গে মনোমালিন্য তো দূর হয়েছে তৃণমূল সরকার এবং সৌমিত্রর! অতএব, এ বার শুধু বিরল মুহূর্ত রচনার পালা!

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here