ওয়েবডেস্ক: ‘মম’ ছবির জন্য ৬৫তম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে সেরা নায়িকার মরণোত্তর সম্মান পাবেন শ্রীদেবী, এ খবর প্রকাশিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ভক্ত এবং প্রয়াত নায়িকার ঘনিষ্ঠদের মধ্যে আনন্দের স্রোত বয়ে গিয়েছে। ছবির পরিচালক রবি উদয়ওয়ার যেমন দাবি করছেন যে, এই পুরস্কার শ্রীদেবীর প্রাপ্যই ছিল! অন্য পক্ষে, প্রয়াত নায়িকার পরিবার থেকেও পেশ করা হয়েছে একটি আনুষ্ঠানিক বিবৃতি। যা বলছে, শুধু ডাকসাইটে অভিনেত্রীই নয়, শ্রীদেবী একই সঙ্গে ছিলেন একজন সুপার-মা এবং সুপার-স্ত্রী। পরিবার তাই তাঁর সাফল্য ঘটা করেই উদযাপন করবে!

sridevi

কিন্তু এত কিছুর মধ্যে বোমাটা ফাটালেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের জুরি বোর্ডে থাকা পরিচালক শেখর কাপুর। যাঁর ‘মিস্টার ইন্ডিয়া’ ছবির সূত্রেই শ্রীদেবীকে ‘হাওয়া হাওয়াই’ বলে চিনতে শিখেছে দুনিয়া। সেই কাপুর দাবি তুলেছেন, শ্রীদেবীর এই মরণোত্তর জাতীয় পুরস্কার পাওয়া অন্যায়! তার পরেও কী ভাবে পাচ্ছেন, সে রহস্য সাম্প্রতিক বিবৃতিতে ফাঁস করে দিলেন পরিচালক।

shekhar kapoor

“শ্রীদেবী আমাদের সবার খুব কাছের মানুষ। কিন্তু শুধু মাত্র সে কারণেই ওকে মরণোত্তর জাতীয় পুরস্কার দেওয়ার কোনো মানে হয় না। আমি শপথ করে বলছি, আমার সঙ্গে বিশেষ সৌহার্দ্য ছিল বলেই সেরা নায়িকার পুরস্কার ওকে দেওয়া হচ্ছে না! বরং আমিই বোর্ডের একমাত্র সদস্য যে রোজ বলত, শ্রীদেবী নয়, পুরস্কারটা ওকে দিও না”, বক্তব্যের প্রথম ভাগে এ কথা জানিয়েছেন কাপুর।

sridevi

তার পরেই এই বিরোধিতার কারণটা স্পষ্ট করেছেন তিনি। “শ্রীদেবীকে মরণোত্তর জাতীয় পুরস্কার দেওয়া মানে অন্য নায়িকাদের সঙ্গে অবিচার করা! এত প্রতিভাময়ী অভিনেত্রীরা ১০-১২ বছর ধরে কাজ করে চলেছে, ওঁদেরও তো কেরিয়ার বলে একটা জিনিস আছে! সেই জন্যই আমি সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেছিলাম। কিন্তু তার পরে যখন ভোট হল, সব মত গেল শ্রীদেবীর পক্ষেই”, বলছেন পরিচালক।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here