ওয়েবডেস্ক: বিয়ে শেষ! এ বার একটা প্রীতিভোজ না হলেই নয়!

কিন্তু যে বিয়ে সেজে উঠেছে রূপকথার আবহে, সেখানে প্রীতিভোজটা সাদামাটা হলে তো আর মানাবে না!

তা যাতে না হয়, জানা গিয়েছে, সেই জন্যই শুভশ্রী গঙ্গোপাধ্যায় এবং রাজ চক্রবর্তী দ্বারস্থ হয়েছে শহরের বিখ্যাত রেস্তোরাঁ আরবানা-র। বিয়ের মেনুর সব খাবারই বন্দোবস্ত করেছিল ৬, বালিগঞ্জ প্লেস। এ বার তা হলে তারা বাদ গেল কেন প্রীতিভোজের ব্যাপারে?

আসলে বিয়েটা নিখাদ বাঙালি মতে সেরেছেন বলেই সেখানে খাদ্য পরিবেশনেও বাঙালিয়ানা বাদ দিতে চাননি শুভশ্রী আর রাজ। কিন্তু প্রীতিভোজে তাঁরা আমন্ত্রিত সব অতিথির রসনার দিকে খেয়াল রেখে মেনু সাজিয়ে তুলেছেন দেশি এবং বিদেশি হরেক সুখাদ্যে।

প্রথমেই আসা যায় পানীয় আর শুরুর টুকিটাকিতে। গরমে কষ্ট করে আসবেন সবাই, গলা ভেজানোর একটা বন্দোবস্ত না রাখলেই নয়! তাই ভার্জিন মোহিতো, ওরিও কফি শেক, আম পোড়ার শরবতের সঙ্গে থাকছে হরেক ফিঙ্গার ফুডস!

subhashree and raj chakraborty

এর পরেই মেন কোর্সের পালা। বিদেশি প্রথা মেনে যার বেশ কিছুটা জুড়ে থাকছে স্যুপ আর সালাদ। কারিড ল্যাম্ব স্যুপ, ক্রিম অব টমাটো স্যুপ উইথ ব্রেড স্টিকস, চাঙ্কি মিট সালাদ, ভেজ সিজার সালাদ, পাস্তা অ্যান্ড বিন সালাদ- বন্দোবস্ত মন্দ নয়।

এ ছাড়াও রয়েছে গার্লিক পেপার ফিশ, গ্রিলড চিকেন স্কিউয়ার্স তেরিয়াকি, চিলি চিজ স্টাফড মাশরুম, ককটেল মোচার চপ, গুজিয়া বড়া, চিকেন স্ট্যু বা ভেজ স্ট্যুয়ের সঙ্গে আপ্পম, আলু-ফুলকপি-মুলোর পরোটা, মুর্গ তাংরি কাবাব, তন্দুরি ফুল, রান-এ-জাহাঙ্গিরি, কড়াই পনির, তাওয়া সবজি, ডাল বুখারা, টার্টার সস আর কাসুন্দি সহযোগে ফিশ ফ্রাই, কর্ন কাটলেট, ডাব চিংড়ি, ধোঁকার ডালনা, ভাজা মশলার আলুর দম, ছোলার ডাল, লুচি, সাদা ভাত, চাটনি আর পাঁপড়!

আর মিষ্টি মুখ?

মিহিদানা সহযোগে বেকড রাবড়ি, গরম ছানার মালপোয়া, গ্র্যান্ড ট্রাফল স্লাইসেন, ম্যাঙ্গো মন্টি কার্লো- বাদ দেওয়া যাবে না কোনোটাই!

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here