কঙ্গনা-আলিয়া যুদ্ধ, এ বার কামান দাগলেন সোনি রাজদান, পালটা তোপ রঙ্গোলির

0
kangna-vs-soni
সোনি, কঙ্গনা, মহেশ ভট

ওয়েবডেস্ক: অবশেষে নীরবতা ভাঙলেন সোনি রাজদান। মেয়ে আলিয়া ভাটের প্রতি কঙ্গনা রানাউতের একের পর এক নিষ্ঠুর আক্রমণের প্রতিবাদ করলেন সোনি। প্রতিবাদ করে একটি টুইট করেন রাজদান। যদিও সেই টুইট মুছে ফেলা হয়েছে। তাতে বলা হয়েছিল, বলিউডে যে মানুষটি রানাউতকে প্রথম কাজ দিয়েছিলেন, তাঁরই মেয়েকে আক্রমণ করছে কঙ্গনা। আবার এই প্রতিবাদের বিরোধিতা করেছেন কঙ্গনার বোন রঙ্গোলি চান্দেল।

মহেশ ভাটের ‘গ্যাংস্টার’ ছবিতে ২০০৬ সালে প্রথম কাজ করেছিল কঙ্গনা।

সোনি তাঁর টুইটে আরও লিখেছিলেন, তাঁরই মেয়ে আর স্ত্রীকে আক্রমণ করছে কঙ্গনা। বিশেষ করে মেয়ের ওপর বার বার আক্রমণ করছে। তিনি আশ্চর্য হয়ে যাচ্ছেন। এ ছাড়াও একাধিক মন্তব্য করেন তিনি।

আরও পড়ুন – কুমারটুলিতে হয়ে গেল রং মাটির পাঁচালী

অন্য দিকে এই টুইটের জবাবে রঙ্গোলি টুইটে দাবি করেছেন, অনুরাগ বসু কঙ্গনাকে ইনডাস্ট্রিতে প্রথম কাজ দেন। মহেশ ভাট নন। এমনকী তিনি একের পর এক টুইটে ‘ও লমহে’ ছবির প্রিভিউতে কী কী ঘটনা ঘটেছিল তার বিবরণও তুলে ধরেছেন।

তিনি রাজদানের উদ্দেশে লিখেছেন, মহেশ ভাট ওই ছবিতে ক্রিয়েটিভ ডিরেক্টর হিসাবে ছিলেন। ওই-টি তাঁর নিজের প্রোডাকশডন হাউজ ছিল না। ‘বো লমহে’ ছবির পর কঙ্গনা যখন ‘ধোকা’ ছবিতে আত্মঘাতী বোমার চরিত্রে অভিনয় করতে অস্বীকার করে, তখন যে মহেশ ভাট শুধু তার ওপর চিৎকার চ্যাঁচামেচি করেছিলেন তাই নয়। তার পর ‘বো লমহে’ ছবির প্রিভিউতেই থাকতে পারেনি কঙ্গনা। হলে ঢোকা মাত্রই তার ওপর জুতো ছুড়ে মেরেছিলেন। কঙ্গনা সারা রাত কেঁদেছিল। তার বয়স তখন ১৯ বছর।

প্রসঙ্গত, এর আগে শত সমালোচনার মুখেও আলিয়ার মনবল ধরে রাখার মানসিকতা নিয়ে রণদীপ হোডার একটি টুইট করেছিলেন। বলেছিলেন, ২৬ বছরের এক জন অভিনেত্রী সমসাময়িক আর এক অভিনেত্রীর কাছ থেকে একের পর এক সমালোচনা সহ্য করেও নিজের ধৈর্যচ্যূতি ঘটায়নি, কাজের ওপর কোনো প্রভাব ফেলেনি। এটি প্রশংসার। এই টুইটেরও বিরোধিতা করেছিলেন রঙ্গোলি। উল্লেখ্য, বহু আলোচিত মণিকর্ণিকা ছবির জন্য আলিয়ার কাছ থেকে কোনো সমর্থন না পাওয়া থেকেই শুরু হয়েছিল এই যুদ্ধ।     

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.