ওয়েবডেস্ক: এক দিকে সলমন খান মুখে দানাটি প্রায় কাটছেন না বললেই চলে আর অন্য দিকে সইফ আলি খানের বাড়িতে চলছে জোর মোচ্ছব!

তা, সেটাই অবশ্য হওয়ার কথাও! জোধপুর আদালত থেকে ‘হম সাথ সাথ হ্যায়’ ছবির শুটিংয়ে বিরল প্রজাতির কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা নিয়ে মামলার রায় বা সলমন খানের হাজতবাসের ঘোষণার পর তাঁর সঙ্গে করমর্দন করে বেরিয়ে এসেছিলেন সইফ আলি খান। এর পরে মুম্বই ফিরেই শুরু হয়েছে খুশির জোয়ারে প্রাণের তরী ভাসানোর পালা। রাতটা কেটেছে শ্যালিকা করিশ্মা কাপুর আর তাঁর হবু স্বামী সন্দীপ তোশনিওয়ালের সঙ্গে ঘরোয়া পার্টিতে। সকাল হতেই কর্তা আর গিন্নি খুদে ছেলেকে ট্যাঁকে গুঁজে বেরিয়ে পড়েছেন পুল জলে কুল খেলা সারতে।

মজার ব্যাপার, সেই পুলসাইডেই প্রথম দেখা গেল তৈমুরের হাঁটাহাঁটির ছবি। দাবি উঠেছে, তৈমুর না কি এই প্রথম হাঁটল! ভালো কথা! প্রায় বছর দেড়েক বয়স তো হল! এখনও যদি হাঁটতে না শেখে, তা হলে তো চিন্তার ব্যাপার! সে ক্ষেত্রে আবার ঠাকুরের থানে ঘোড়া মানতের একটা ব্যাপারও থেকে যায়! কে জানে, শুটিং আর পার্টির বহর সামলে সে সব কতটা করে উঠতে পারতেন করিনা কাপুর খান!

যাই হোক, সমস্যা তো মিটেছে! সে যেমন বাবার দিক থেকে, তেমনই ছেলের দিক থেকেও। ফলে, পতৌদি পরিবারের সবাইকে বেশ খোশ মেজাজেই চোখে পড়ছে। শুধু একটা কথাই কাঁটার মতো বিঁধে চলেছে খচখচ করে!

পুলসাইডে যদি প্রথম হাঁটতে শেখে তৈমুর, তা হলে এই ছবিতে, ঠিক উপরেরটায়, মায়ের সঙ্গে রাস্তা দিয়ে কখন হাঁটল সে?

আশা করা যায়, একদিন না একদিন করিনা বা সইফের কেউ একটা এ বিষয়ে মুখ ঠিকই খুলবেন!

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here