ওয়েবডেস্ক: জন্ম নেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে প্রথম যে বিতর্ক তৈরি হয়েছিল পতৌদি পরিবারের এখনও পর্যন্ত শেষ এই উত্তরাধিকারীকে নিয়ে, সেটা হল তার নাম! জানা গিয়েছে, শেষ পর্যন্ত না কি বাবা সইফ আলি খান ছেলের নাম তৈমুর রাখতে চাননি। নাম রাখতে চেয়েছিলেন ফৈজ! কিন্তু মা করিনা কাপুর খান বসেছিলেন বেঁকে! “আমার ছেলে লোহার মতোই কঠিন এবং ঐতিহাসিক যোদ্ধার মতো অপরাজেয় হবে”, এই যুক্তি যে তিনি দেখিয়েছিলেন, তা নিজেই এক সাক্ষাৎকারে কবুল করেছিলেন বেগমজান। কেন না, তৈমুর কথাটার মানে লোহা!

saif kareena taimur

এবং সারা দেশ শিউরে উঠেছিল সেই সময়ে। ওই যে একটা সংস্কার আছে না- যার নামে নাম রাখা হয়, সন্তানও তার চরিত্রও পায়! এ দিকে তৈমুর লং তো সারা দুনিয়ায় এক নৃশংস শাসক রূপে কুখ্যাত! তা হলে ব্যাপারটা কোন দিকে যাচ্ছে?

ব্যাপারটা খুব সম্ভবত ভালো কোনো দিকে যাচ্ছে না। কেন না, মাস কয়েক আগে এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছিলেন সইফ, সোহার মেয়ে ইনায়া নাওমি খেমুর কাছ থেকে দূরে রাখা হয় তৈমুরকে। খুদের স্বভাব না কি বেশ মারকুটে হয়ে উঠেছে! ফলে তাঁরা তৈমুরকে বোনের কাছে ঘেঁষতে দেন না!

মানে, একটা লক্ষণ মিলল। এ বার আসা যাক তৈমুর লংয়ের নিজের মর্জিতে চলার স্বভাবের কথায়। হালফিলে দেখা যাচ্ছে, মায়ের শাসন মোটেই গ্রাহ্য করে না ছোটে নবাব। বরং, পাপারাজ্জি দেখলে হাত ছাড়িয়ে নিয়ে দৌড় দেয়। করিনা আটকালে শুরু হয় বেদম কান্নাকাটি! কী বুঝছেন?

taimur ali khan

অবশ্য আপনার বা আমার বোঝায় কীই বা এসে যায়! করিনা তো এটাও বলতে শুরু করেছেন যে তৈমুরের চোখ না কি যোদ্ধাদের মতো। “যত বয়স বাড়ছে, তৈমুরকে ঠিক ওর বাবার মতো দেখতে হচ্ছে। তবে চোখদুটো জাপানি সামুরাই যোদ্ধার মতো”, দাবি মায়ের।

kareena kapoor khan

আর বাবার কী বক্তব্য এ নিয়ে?

saif ali khan and kareena kapoor and taimur

“আমার তো মাঝে মাঝে তৈমুরকে করিনার চিনা সংস্করণ বলে মনে হয়। আসলে ওর মধ্যে একটা মোঙ্গল লুক আসছে”, বলছেন নবাব সাহেব!

তা, তৈমুর লং যে জাতে মোঙ্গল এবং পতৌদিদের মতোই ধর্মে মুসলিম ছিলেন- সে কি আর অস্বীকার করা যায়?

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here