ওয়েবডেস্ক: বিনতা নন্দা নামটা বললে চিনতে অনেকের একটু অসুবিধে হতে পারে। কিন্তু যদি বলা হয়- ১৯৯০ সালে ছোটোপর্দার অন্যতম জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘তারা’-র চিত্রনাট্য লিখতেন তিনিই, তা হলে অনেকের মনে তাঁর গল্প বোনার নৈপুণ্য কিছুটা মনে পড়ে গেলেও যেতে পারে। সম্প্রতি এ হেন বিনতা অভিযোগ করেছেন- দেশের সব চেয়ে ‘সংস্কারী’ অভিনেতা তাঁর ধারাবাহিকের নায়িকা এবং তাঁকেও ধর্ষণ করেছেন একাধিকবার!

বিনতার ফেসবুক পোস্ট বলছে, মদ্যপ এই অভিনেতা প্রথমে তাঁর ধারাবাহিকের নায়িকাকে ধর্ষণ করেছিলেন। এটা তিনি কর্তৃপক্ষকে জানালে বিনতারা ঠিক করেন- শেষ শটটা নিয়ে ওই অভিনেতাকে বাদ দিয়ে দেওয়া হবে ধারাবাহিক থেকে। “কিন্তু উনি ব্যাপারটা জানতে পেরে গিয়েছিলেন। তাই সে দিন শট দেওয়ার আগে পর্যন্ত মদ খেয়ে গেলেন। তার পর শট দিতে খুব বাজে ভাবে গায়ে পড়ে গেলেন নায়িকার। দেখাতে চাইলেন- এটা ইচ্ছাকৃত নয়। আমরা তখনই ওঁকে কাজ থেকে ছাড়িয়ে দিই। কিন্তু এর পরে ধারাবাহিকের প্রযোজনা সংস্থার নতুন সিইও আমায় নিজের অফিসে ডেকে যাচ্ছেতাই ভাবে গালাগালি দেন এবং কাজ থেকে ছাড়িয়ে দেন”, লিখেছেন বিনতা। তার পরেই জানিয়েছেন, নিজের ধর্ষণের ঘটনা!

আরও পড়ুন: আমি নই, তনুশ্রীই আমায় জড়িয়ে ধরেছিল, এ কী উদ্ভট যুক্তি নানার ভিডিওয়!

“আমরা সবাই থিয়েটারের সুবাদে চিনতাম পরস্পরকে। মাঝে মাঝেই ওই অভিনেতার বাড়িতে আড্ডা বসত। এক দিন সে রকমই এক আড্ডায় ওঁর বাড়িতে গিয়েছি। ওঁর স্ত্রী আমার প্রিয় বন্ধু, না যাওয়ার কারণ নেই। কিন্তু সে দিন ওঁর স্ত্রী বাড়িতে ছিলেন না। সেই সুযোগে আমার পানীয়য় একটা কিছু মাদক মিশিয়ে দেওয়া হয়। আমার মাথা ঝিমঝিম করতে থাকে। বুঝতে পারি- আমার এখানে থাকাটা সমীচীন নয়। তাই বেরিয়ে আসি। পথে ওই অভইনেতা নিজেই গাড়ি চালিয়ে আমার পিছু নেন। বলেন, বাড়িতে পৌঁছে দেবেন। অসুস্থ লাগছিল বলে আমি গাড়িতে উঠি। উনি আমায় বাড়িতে পৌঁছে দেন। এর পর শুধু মনে আছে, আমার মুখে জোর করে কেবল মদ ঢেলে দেওয়া হচ্ছে, আমায় ধর্ষণ করা হচ্ছে একই সময়ে আর প্রচণ্ড মারধরও করা হচ্ছে! সকালে সারা শরীরে অসহ্য ব্যথা নিয়ে জেগে উঠি”, লিখেছেন বিনতা। এবং পোস্টে সেই ‘সংস্কারী’ অভিনেতার নাম না নিলেও পরে সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন টেক্স্ট করে- “উনি অলোক নাথ! সংস্কারী অভিনেতা বললেই সবাই বুঝবেন, তাই এই ব্যঙ্গটা করেছি!”

 

View this post on Instagram

 

A halo in flight…..may your journey reach you pretty birdies to the destination of your desire

A post shared by Alok Nath (@nath.alok) on

পাশাপাশি, বিনতা সাফ জানিয়েছেন, কেন এতগুলো বছর চুপ করে ছিলেন তিনি। “ওই অভিনেতা অত্যন্ত প্রভাবশালী, আমি কোথাও কাজ পাচ্ছিলাম না। তাই চুপ করে যেতেই হয়। কিন্তু এখন মনে হয়েছে ওঁর স্বরূপটা সবাইকে জানানো দরকার!” অলোক নাথ অবশ্য এখনও ঘটনায় কোনো বিবৃতি দেননি। দেখা যাক পরে কী বলেন তিনি!

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন