“ওরা সকালে আমাকে ‘আম্মা’ বলত শুটিংস্পটে, রাতে বলত বিছানায় শুতে”

0
1801
sex deamnad

ওয়েবডেস্ক: ১৫ জন জুনিয়র অভিনেত্রী সংবাদ মাধ্যমের কাছে মুখ খুলে ছায়াছবি-কারখানার অন্দর মহলে ঘটে চলা কেচ্ছাকে উন্মুক্ত করে দিলেন। তেলুগু ছবির এক নায়িকা শ্রী রেড্ডি ঠিক যে দাবিতে প্রকাশ্যে অর্ধনগ্ন হয়ে প্রতিবাদ জানিয়ে ছিলেন, সেই দাবিই আরও জোরালো হল ওই সাংবাদিক বৈঠকে।

তাঁদের দাবি, “কাজ পাওয়ার তাগিদে আমরা পরিচালকের জন্য সমস্ত কিছুই করেছি। যৌন পরিতৃপ্তি মেটানো থেকে শুরু করে দেখতে আরও আকর্ষণীয় হয়ে ওঠার জন্য অস্ত্রোপচার, ত্বকের টোন পরিবর্তন-সবই করতে হয়েছে। আদতে আমরা পরিচালকদের দাবার ঘুটি হিসাবে ব্যবহৃত হয়েছি”।

ওই অনুষ্ঠানেও স্বাভাবিক ভাবেই উপস্থিত ছিলেন অ্যাঙ্কর-অভিনেত্রী শ্রী রেড্ডি। কিন্তু তাঁর সঙ্গে সঙ্গত দেওয়া বাকি জুনিয়র অভিনেত্রীদের একের পর এক তির ছুটতে থাকে তেলুগু চলচ্চিত্র শিল্পের পরিচালক-প্রযোজক তখা সংশ্লিষ্ট অভিযুক্তদের দিকে। ১৮ থেকে ৪০ বছর বয়স্কা ওই জুনিয়র শিল্পীদের অধিকাংশের অভিযোগ, কোনো একটা ছবিতে সামান্য একটা মুহূর্তের কাজের বিনিময়ে তাঁদের যৌন শোষণ করা হয়েছে। যে সব চরিত্রগুলির মধ্যে বেশির ভাগই ছিল হয় মা অথবা কাকিমা-জ্যেঠিমার চরিত্র।

সন্ধ্যা নায়ডু নামে এক অভিনেত্রী বলেন, “সকালে শুটিং স্পটে ওরা আমাকে আম্মা বলে ডাকত। আর রাতে বলত ওদের সঙ্গে একই বিছানায় শুতে। সন্ধ্যা টলিউডে প্রায় ১০ বছর কাটিয়ে দিয়েছেন এ ভাবেই। এখানেই শেষ নয়। বাড়ি আসার পরেও হোয়াটসঅ্যাপে চ্যাট করতে বাধ্য করা হতো। এমনকী কেউ কেউ জি়জ্ঞাসা করতেন, কী পরে আছি। সেটা ট্রান্সপারেন্ট কি না”।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here