বৈশালী ঠক্কর। প্রতীকী ছবি

জনপ্রিয় টিভি অভিনেত্রী বৈশালী ঠক্করের (Vaishali Takkar) ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয় রবিবার সকালে। নায়িকার ইনদওরের বাড়ি থেকে ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার করে পুলিশ। ওই বাড়িতেই গত বছর থেকে বসবাস করছিলেন তিনি। দেহ উদ্ধারের পরে স্থানীয় তেজাজি নগর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। ঘটনাস্থল থেকে একটি সুইসাইড নোটও উদ্ধার করা হয়েছে। সুইসাইড নোটে কী লিখেছেন নায়িকা?

আত্মহত্যা? কেন আত্মহত্যা?

এখন প্রকাশ্যে এসেছে সুইসাইড নোটের বিস্তারিত। এএনআই-এর রিপোর্ট অনুযায়ী, বেশ কিছুদিন ধরেই মানসিক চাপে ছিলেন বৈশালী। তিনি তার সুইসাইড নোটে সে কথা উল্লেখ করেছেন। নোটটিতে আরও বলা হয়েছে, প্রাক্তন প্রেমিকের কাছে হয়রানির শিকার হচ্ছিলেন অভিনেত্রী।

বলে রাখা ভালো, আদৌ তিনি আত্মহত্যা করেছেন কি না, বা করে থাকলে কেন তিনি আত্মহত্যা করলেন, তা নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। মৃত্যু পরবর্তীতে তাঁর ঘর থেকে মিলেছে একটি ডায়েরি। তথ্যের হদিশ পেতেই সেই ডায়েরি খতিয়ে দেখছে পুলিশ। তদন্ত করার পরেই বাকি সবকিছু জানানো সম্ভব হবে। এখনই সবকিছু জানানো সম্ভব নয়, বলে জানিয়েছে পুলিশ।

কে সেই প্রাক্তন প্রেমিক

মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী, তাঁর প্রাক্তন প্রেমিকের নাম এখনও প্রকাশ করা হয়নি। গত বছরের এপ্রিলে, বৈশালী ভক্তদের জানিয়েছিলেন যে তিনি বাগদান করেছেন। ইনস্টাগ্রামে অভিনন্দন সিংহের সঙ্গে তাঁর বাগদানের ছবিও প্রকাশ করেছিলেন নায়িকা। ওই অনুষ্ঠানে শুধুমাত্র তাঁদের পরিবারের ঘনিষ্ঠরাই আমন্ত্রিত ছিলেন। জানা যায়, অভিনন্দন কেনিয়ার এক দাঁতের চিকিৎসক। কিন্তু এক মাসের মধ্যেই বৈশালী ফের জানান, অভিনন্দনকে তিনি বিয়ে করছেন না। তাঁদের বিয়ে ভেঙে যায়।

তাঁদের বিয়ে হওয়ার কথা ছিল জুনে। তবে তার আগেই বিয়ে ভেঙে যায়। এর পরই অভিনেত্রী নিজের সোশ্যাল মিডিয়া হ্যান্ডেল থেকে ওই অনুষ্ঠানের ভিডিও সরিয়ে ফেলেন।

এক নজরে বৈশালী ঠক্কর

‘সসুরাল সিমর কা’ ধারাবাহিকে কাজ করে জনপ্রিয়তা লাভ করেছিলেন বৈশালী। ওই ধারাবাহিকে তাঁর অভিনীত চরিত্রটির নাম ছিল অঞ্জলি ভরদ্বাজ। এ ছাড়াও একাধিক ধারাবাহিকে তাঁর অভিনয় প্রশংসিত হয়েছে।

সুপার সিস্টারস-এ শিবানী শর্মা, ভিশ ইয়া অমৃত-এ নেত্রা সিং রাঠোর, মনমোহিনী ২-এ সিতারা এবং অনন্যা মিশ্রের ভূমিকায় অভিনয়ের জন্য তিনি সবচেয়ে বেশি পরিচিত। টিভিতে বৈশালীর আবির্ভাব হয়ে ছিল স্টার প্লাসের দীর্ঘতম চলমান ধারাবাহিক, ইয়ে রিশতা কেয়া কহলাতা হ্যায়-এ।। যেটিতে তিনি ২০১৫-১৬ পর্যন্ত সঞ্জনা চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন। ২০১৬ সালে, তিনি ইয়ে হ্যায় আশিকি-তে বৃন্দা চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন। তাঁকে শেষ দেখা গিয়েছিল টিভি শো রক্ষাবন্ধনে, কনক সিংসাল সিং ঠাকুরের ভূমিকায়।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন