shahrukh khan padmavat

ওয়েবডেস্ক: ‘পদ্মাবত’ মুক্তি পেয়েছে দিন কুড়ি হয়ে গেল। ঝামেলা, ঝঞ্ঝাট, কর্নি সেনার তাণ্ডব অনেকটাই স্তিমিত। কিন্তু ‘পদ্মাবত’-এর মুক্তি পাওয়ার সময়ে বলিউডের তারকাদের সে ভাবে মুখ খুলতে দেখা যায়নি। ‘পদ্মাবত’-এর পরিচালক সঞ্জয় লীলা বনসালির পাশে খুব একটা কোনো তারকাকে দাঁড়াতে দেখা যায়নি।

তা হলে কি নিজেদের পিঠ বাঁচাতেই ‘পদ্মাবত’ বিতর্কে চুপ ছিল বলিউড। এমনটা মনে করেন না বলিউডের কিং খান শাহরুখ। বরং তিনি মনে করেন, বক্স অফিসে যাতে সিনেমাটির কোনো ক্ষতি না হয় সে কারণেই ইচ্ছে করে চুপ থাকেন তারকারা।

তিনি বলেন, “বলিউড তারকাদের ব্যাপারে একটা স্বাভাবিক ধারণা হল, ‘ও এঁরা সমাজের জন্য কখনোই কিছু করে না।’ এটা সম্পূর্ণ ভুল একটা ধারণা। আমরাও সমাজকে ভালোবাসি। ভালো ভালো সিনেমা তৈরি করি যাতে সাধারণ মানুষকে খুশি রাখা যায়। সিনেমার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখানো হলে আমরা যে চুপ থাকি তার মানে এই নয় যে আমরা ভীত বা পিঠ বাঁচাচ্ছি।”

‘পদ্মাবত’ নিয়ে যাবতীয় বিক্ষোভ চলাকালীন তিনিই সিনেমাটির তারকাদের চুপ থাকার পরামর্শ দিয়েছিলেন বলে জানিয়েছেন বাদশাহ। তিনি বলেন, “প্রথম কয়েক দিনেই সিনেমার ব্যবসা হয়। ওই দিনগুলোয় যদি ব্যবসা না করা যায়, তা হলে লাভ করার সম্ভাবনা ক্রমশ কমে যায়। যখন ‘পদ্মাবত’ নিয়ে বিক্ষোভ চলছিল তখন অনেকেই বলেছে, ‘বলিউড কেন চুপ করে রয়েছে? কেন তারা ভয় পাচ্ছে কিছু বলতে?’ না আমরা ভয় পাইনি। আমরা এই বিক্ষোভের ব্যাপারে কিছু বলতে গেলে উলটে আগুনেই হাওয়া দিয়ে দেওয়া হত। সেটা আমরা করতে চাইনি। সত্যি কথা বলতে বিক্ষোভকারীরা বেশি গুরুত্ব পেয়ে যাক সেটা আমরা চাইনি।”

কোনো পরিচালক ইচ্ছে করে কোনো ধর্ম, কোনো জাতি, কোনো মানুষকে আঘাত করতে পারে, এমন সিনেমা তৈরি করবেন না। সেটা সম্পূর্ণ কাকতালীয় ভাবে হয়ে যায় বলে মনে করেন শাহরুখ। শাহরুখ বলেন, সব সময়ে সব মানুষকে খুশি করা যায় না। কোনো সিনেমার ব্যাপারে মানুষের একটা অংশের ক্ষোভ হয়। তবে সিনেমাটি মুক্তি পেলে সেটার বিষয়বস্তুটি দেখলে মানুষের ক্ষোভ অনেকটাই কমে যায় বলে মনে করেন তিনি।

শাহরুখের মতে, সৃষ্টিশীল মানুষ কখনোই সৃষ্টি করতে ভয় পান না। তাঁদের ভয় হয় শুধুমাত্র দর্শকদের জন্য। তবে তাঁদের সৃষ্টির কাজ থেকে টলানো যাবে না বলেও মন্তব্য করেন তিনি। তাঁর কথায়, “যতই হুমকি দেওয়া হোক, সৃষ্টিশীল মানুষ সিনেমা তৈরি করা থেকে পিছপা হবেন না। তাঁরা যেটা মনে করবেন সেটাই বলবেন। মাঝেমধ্যে সমস্যা হয় কিন্তু সেই সমস্যার সম্মুখীন হতে তাঁরা ভয় পান না।”

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here