বং বিউটি রিয়া সেন দেব বর্মণ এই মুহূর্তে কলকাতায় তাঁর আগামী বাংলা ওয়েব সিরিজ শুট করছেন। এর ফাঁকে খবর অনলাইনের প্রতিনিধি রাকা রায়ের সঙ্গে কথা বলে নিলেন নায়িকা।

হিন্দি ওয়েব সিরিজের পর প্রথম বাংলা ওয়েব সিরিজে কাজ শুরু করলেন। কী বলবেন?

রিয়া: মিস ম্যাচ ২ ওয়েব সিরিজে কাজ শুরু করেছি। বাংলায় এটাই আমার প্রথম ওয়েবের কাজ। এখানে আমার চরিত্রটা খুব মিষ্টি সাদাসিধা একটা মেয়ের। ঠিক যেন পাশের বাড়ির মেয়ে। এই গল্পটা একটা সিচুয়েশনাল কমেডি। এই চরিত্রটাকে ঘিরে নানা মজার জিনিস ঘটতে থাকে।

ছবি: রিয়া সেন

আরও পড়ুন: কখনও ড্রাগন, কখনও প্রজাপতি, নতুন যোগাসনে আবিষ্কার করুন রিয়া সেনকে

হিন্দিতে আরবাজ খানের সঙ্গে ‘পয়জন’ বেশ ভালো লেগেছে দর্শকের… দুটো হিন্দি ওয়েব সিরিজের পর বাংলা ওয়েবের এই কাজটা করতে রাজি হলেন বিশেষ কোন কারণে?

রিয়া: হ্যাঁ, আমি হিন্দিতে দুটি ওয়েব সিরিজে কাজ করেছি। “পতি পত্নী অউর ও”, আর “পয়জন”। এর পরই আমার কাছে “মিস ম্যাচ ২”-এর প্রস্তাব আসে। গল্পে আমার চরিত্রটা পরিচালক সৌমিকদা এত ভালো করে লিখেছেন যে কাজ করতে মজা পাচ্ছি। ওর সঙ্গে আমার অনেক দিনের আলাপ। আমাকে অনেক ভালো করে বোঝেন। আমার পরিবারের থেকেও বেশি বোঝেন। তাই কাজ করে খুব মজা পেলাম। আমার সঙ্গে পরিচালকের এই কেমিষ্ট্রি পর্দায় দর্শকরা দেখতেই পাবে। মিস ম্যাচ ২ এর গল্প আগের সিরিজ থেকে একদম আলাদা। হিরোইনের চরিত্র। সঙ্গে হইচই এক নম্বর বাংলা অ্যাপ। তাই কাজটা তো করতেই হতো। এখন তো ওয়েব সিরিজের চাহিদা অনেক বেশি, গল্পের বিষয়বস্তু সব নতুন। কাজ করে ভালো লেগেছে।

ছবি: রিয়া সেন

সেনসরসিপ প্রয়োজন নেই ওয়েব-এ । এটা কী ভাবে দেখেন?

রিয়া: সেনসরসিপ প্রয়োজন নেই বলেই ওয়েব সিরিজে পরিচালক থেকে চিত্রনাট্যকার নিজের গল্প যেমন ভেবেছেন, তেমনই দেখাতে পারেন। কারও চাপে এডিট করতে হয় না। যেমন চিত্রনাট্য চাইছে তেমন দেখানোর স্বাধীনতা থাকে। ওইসব সিরিজে অনেক ধরনের চরিত্র করার সুযোগ বেশি রয়েছে।

ছবি: রিয়া সেন

কিছু দিন আগে একটি জনসভায় আপনার মা মুনমুন সেন আপনি এবং আপনার দিদি রাইমা সেন রাজনীতিতে আসতে পারেন এমন ইঙ্গিত দিয়েছেন। কোনো প্ল্যান করছেন?

রিয়া: রাইমার কথা আমি বলতে পারছি না। তবে আমি এখনই রাজনীতিতে আসছি না। আমি বিয়ে করেছি দেড় বছর হল। এত কাজ আসছে। মুম্বই দিল্লি কলকাতা করছি। এখন আমি রাজনীতিতে গেলে সেখানে সময় দিতে পারব না। তাই এখন কোনো প্ল্যান নেই। তবে সাপোর্ট করব যদি রাইমা রাজনীতিতে যায়। আমি মায়ের প্রচারে যেতে চাই কিন্তু সময় বার করতে পারছি না। তবে সময় পেলেই আসানসোল যাব মায়ের জন্য প্রচার করতে।

ছবি: রিয়া সেন

বিয়ের পর জীবন কতটা বদলেছে? আপনি তো রান্না করতে ভালোবাসেন। স্বামীকে রেঁধে খাইয়েছেন?

রিয়া: (হাসি) আমরা দুজনে, মানে আমি ও আমার হাবি, সব কিছু একসঙ্গে করতে ভালোবাসি। আমি এক বছরে ওঁকে অনেকবারই রান্না করে খাইয়েছি। আমি রান্নার যেমন কোর্স করছি, তেমনি যোগাসন শিখেছি। আমি কিন্তু একজন যোগশিক্ষকও। আমি অনেক ধরনের যোগ শেখাই। ইয়ান, এরিয়াল যোগ শেখাই। আমার হাবিও যোগা করেন। আমি আয়ুর্বেদ চর্চা করি, শিখি। আমার খুব ভালো লাগে। আমি দেশ ও বিদেশের নানা জায়গায় গিয়ে শিক্ষা নিই। আমার হাবিও ভীষণ এনজয় করেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here