Environmental Activists killed
ছবি: র‍্যাপ্লার.কম থেকে

ওয়েবডেস্ক: গত এক বছরে সারা পৃথিবীতেই পরিবেশকর্মীদের উপর আক্রমণ এবং হত্যার সংখ্যা রেকর্ড স্তরে পৌঁছে গিয়েছে।

আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা গ্লোবাল উইটনেসের একটি সাম্প্রতিক রিপোর্টে পরিবেশকর্মীদের উপর আক্রমণ ও খুনের তথ্য সম্বলিত বিশদ বিবরণ প্রকাশিত হয়েছে। যেখানে দেখা গিয়েছে, ২০১৭ সালে আধা-সামরিক বাহিনী, সরকারি বহিনী, ভাড়াটে আততায়ী বা চোরাচালানকারীদের হাতে ২০৭ জন পরিবেশকর্মী নিহত হয়েছেন। ওই পর্যবেক্ষণেই উঠে এসেছে, কী ভাবে গবাদি পশুর চোরাচালান ও বেআইনি ভাবে চাষের (আখ) কাজ ঠেকাতে গিয়ে বা বনজসম্পদরক্ষা করতে গিয়ে পরিবেশকর্মীদের প্রাণ দিতে হয়েছে। এমনকী পরিবেশকে তোয়াক্কা না করেও শিল্পায়নের বিরোধিতা করেও প্রাণ গিয়েছে অসংখ্যা পরিবেশকর্মীর। ওই পরিসংখ্যানেই বলা হয়েছে, ওই বছর প্রতি সপ্তাহে গড়ে চার জন পরিবেশকর্মীকে খুন করা হয়েছে।

তবে আদিবাসী জনগোষ্ঠী অধ্যুষিত এলাকাগুলিতে খনিজ দ্রব্য আরোহণের জন্য বাধা প্রাপ্ত হয়েও পরিবেশকর্মীদের খতম করে দেওয়ার ঘটনাও সংখ্যাগত ভাবে খুব একটা কম নয়। সেখানে যেমন পেশাগত ভাবে বেআইনি কাজের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর ঘটনা থাকে, তেমনই থাকে স্বেচ্ছায় পরিবেশ রক্ষার লড়াইও।

গ্লোবাল উইটনেসের বিস্তারিত সমীক্ষায় উঠে এসেছে কী ভাবে বিশ্বের কোনায় কোনায় প্রতিটা মুহূর্তে পরিবেশকর্মীদের উপর আক্রমণ হানা হচ্ছে বেআইনি ভাবে। কোথাও তো সরকারের হাতেই উঠে আসছে আগ্নেয়াস্ত্র। এ বিষয়ে ওই রিপোর্টে ঠাঁই পেয়েছে হারনান বিদোয়ার নাম। যিনি ওই ২০৭ জন নিহতের একজন। কোলোম্বিয়ার আধা-সামরিক বাহিনী তাঁর উপর ১৪টি গুলি চালায়। তাঁর অপরাধ ছিল, নিজের সম্প্রদায়ের জমিতে সরকারি উদ্যোগে পাম অয়েল এবং কলা চাষের বিরোধিতা করা।

আরও পড়ুন: পথনাটিকায় সাফাইয়ের বার্তা দিল আদ্রার মণিপুর অনাথ আশ্রম

গ্লোবাল উইটনেসের ওই রিপোর্টের একটি প্রতিবেদনে পরিবেশবিদ, লেখক তথা প্রচারক জর্জ মনবিয়ত বলেছেন, ” জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে গড়ে ওঠা সমগ্র বিশ্বের লড়াইয়ে পরিবেশকর্মীরা প্রথম সারিতে রয়েছেন।” আর আশ্চর্যজনক ভাবে তাঁদের উপরেই লাগামহীন আক্রমণের ঘটনা বেড়ে চলেছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here